সিলিন্ডারের গ্যাসে ট্রেনে নাস্তা বানানোর সময় ঘটে বিস্ফোরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে ট্রেনের ভেতর যাত্রীরা নাস্তা তৈরি করছিলেন। এসময় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে ৬৫ জনের মৃত্যু হয়। 

দেশটির রেলমন্ত্রীর শেখ রশিদ আহমেদ বিবিসিকে জানিয়েছেন, যাত্রীরা সকালের নাস্তা তৈরির সময় সিলিন্ডার বিস্ফিারণ হয়। যাত্রীরা রান্নার কাজে তেল ব্যবহার করছিল। এতে আগুন ্ দ্রুত ছড়িয়েছে। 

ট্রেনটির তিনটি বগিতে আগুন ছড়িয়ে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী। তিনি জানান, তিনটি বগিতে তাবলীগ জামাতের অনেক সদস্য ভ্রমণ করছিলেন। তারা এক  সম্মেলনে যোগ দেওয়ার জন্য যাচ্ছিলেন।

বৃহস্পতিবার সকালে পাঞ্জাব প্রদেশের দক্ষিণে রহিম ইয়ার খান জেলার লিয়াকতপুর শহরের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

‘তেজগাম এক্সপ্রেস’ নামের ট্রেনটি করাচি থেকে রাওয়ালপিন্ডির উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

এই দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৪০ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন পাঞ্জাব প্রদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড. ইয়াসমিন রশিদ।

তিনি জানান, আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

দ্য ডনের এক প্রতিবেদনে জানা গেছে, পাকিস্তানে ট্রেনে সিলিন্ডার বহন করা আইনত দণ্ডনীয়।

নাবিলা আসলাম নামে রেলের এক কর্মকর্তা জানান, যাত্রীরা তাদের কাপড়ের মধ্যে লুকিয়ে গ্যাস সিলিন্ডার বহন করেছিল। 

রহিম ইয়ার খান জেলার ডেপুটি কমিশনার জানান, ট্রেনের বগিগুলোতে তাবলীগ জামাতের সদস্যরা ভ্রমণ করছিলেন।

রেলমন্ত্রী বলেন, ১ হাজার ১২২টি টিম উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেছে। উদ্ধারকাজে দেশটির সেনাবাহিনীও যোগ দিয়েছে। দুই ঘণ্টার মধ্যে পুনরায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে আশা করছি। 

নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি আহতদের সর্বেোচ্চ চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। 

এ ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ।

সাদিকাবাদে দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২০ জন নিহতের মাত্র তিন মাসের মধ্যে ফের এমন দুর্ঘটনা ঘটলো।