যুক্তরাজ্যের জুনিয়র স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

March 11, 2020, 3:29 pm নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

যুক্তরাজ্যের জুনিয়র স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং কনজারভেটিভ এমপি নাদিন ডরিয়েস করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁর করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফল পজিটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আজ বুধবার বিবিসি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, নাদিন ডরিয়েস প্রথম ব্রিটিশ এমপি, যিনি করোনাভাইরাসের কারণে কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি বাড়িতে নিজস্ব কোয়ারেন্টাইনে (রোগ সংক্রমণের শঙ্কায় পৃথক রাখা) রয়েছেন। মন্ত্রী জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ার পর তিনি সতর্কতামূলক সব ধরনের পরামর্শ মেনে চলছেন।

কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাজ্যে এর মধ্যে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত মোট ৩৮২ জন। মারা যাওয়া সবশেষ ব্যক্তির বয়স ছিল ৮০ বছরের মতো। তিনি আগে থেকেই নানান জটিলতায় ভুগছিলেন।

মিড বেডফোর্ডশায়ারের এমপি ডরিয়েস এক বিবৃতি জানান, জনস্বাস্থ্য সংস্থা পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড তাঁর সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের শনাক্ত করার কাজ শুরু করেছে। তাঁর সংসদীয় কার্যালয় সব পরামর্শ মেনে চলছে।

৬২ বছর বয়সী ডরিয়েস নার্স হিসেবে তাঁর পেশাজীবন শুরু করেছিলেন। ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া নিয়ে পরে এক টুইটে ডরিয়েস বলেন, ‘জঘন্য একটা অবস্থা। তবে আশা করি, গুরুতর পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠেছি।’ তবে তাঁর সঙ্গে বসবাসরত ৮৪ বছর বয়সী মাকে নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, গতকাল মঙ্গলবার থেকে মায়ের কাশি শুরু হয়েছে।

ডরিয়েস গত কয়েক দিনে ওয়েস্টমিনস্টার বা তাঁর সংসদীয় এলাকায় ঠিক কতটি বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন, তা জানা যায়নি।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, ডরিয়েসের প্রথম লক্ষণ দেখা দেয় গত বৃহস্পতিবার। ওই দিন তিনি প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত ডাউনিং স্ট্রিটের এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন। গত শুক্রবার থেকে তিনি বাড়িতে নিজেকে পৃথক করে রাখেন।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে পরীক্ষা করা হয়েছে কি না বা কখন পরীক্ষা করা হবে, সে সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করেনি ব্রিটিশ সরকারপ্রধানের সদর দপ্তর ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিট।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানককসহ সব স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং ওই মন্ত্রণালয়ের সব কর্মকর্তা, যাঁরা ডরিয়েসের সংস্পর্শে এসেছিলেন, তাঁদের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হচ্ছে।
ডরিয়েসের সুস্থতা কামনা করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হ্যানকক বলেন, তিনি (ডরিয়েস) নিজেকে পৃথক রেখে সঠিক কাজটিই করেছেন। তিনি আরও বলেন, ‘রোগটি নিয়ে লোকজনের উদ্বেগের কারণ আমি বুঝতে পারছি। বিজ্ঞানের সম্ভাব্য সবচেয়ে ভালো ব্যবস্থার আলোকে লোকজনকে সুস্থ রাখতে আমরা সব রকমের ব্যবস্থা নেব।’যুক্তরাজ্যজুড়ে জনস্বাস্থ্য বিভাগ এর মধ্যে ২৫ হাজারের বেশি ব্যক্তির করোনাভাইরাস পরীক্ষা করেছে।