রাজকীয় অভিষেক বসুন্ধরা ও বার্কোসের

March 12, 2020, 12:27 pm নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

‘এলাম, দেখলাম, জয় করলাম’- বসুন্ধরা কিংসের হয়ে রূপকথার মতো অভিষেক হলো আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের সাবেক ফরোয়ার্ড হার্নান বার্কোসের। কিংসের হয়ে প্রথমবার মাঠে নেমেই হ্যাটট্রিকসহ চার গোল করলেন মেসির এই সাবেক সতীর্থ। গতকাল তার অনবদ্য নৈপুণ্যে মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসকে ৫-১ গোলে বিধ্বস্ত করে এএফসি কাপে রঙিন অভিষেক ঘটলো বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংসের। দলের হয়ে বাকি গোলটি করেন আরেক বিশ্বকাপ তারকা ড্যানিয়েল কলিনদ্রেস। জয়ে অবদান আছে গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোরও। পোস্টের নিচে দুর্বার এই গোলরক্ষক ঠেকিয়েছেন তিনটি পেনাল্টি।
এএফসি কাপে নিজেদের অভিষেকটা রাঙানোর প্রস্তুতি ছিল সবখানে। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামটিকেও মনের মতো করে সাজিয়েছিল বসুন্ধরা কিংস। মাঠে দর্শক সমাগম ঘটিয়েছে স্বাগতিক ক্লাবটি।

বসুন্ধরার আগে এএফসি কাপে বাংলাদেশ থেকে খেলেছে আবাহনী লিমিটেড ও সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। কিন্তু কারো বেলাতেই এতো প্রস্তুতি দেখা যায়নি। মাঠের খেলাতেও তার প্রমাণ মিলেছে যথেষ্ট। যদিও মাঠে নামার আগে বসুন্ধরা কোচ অস্কার ব্রুজনের মতো সাহস কেউ দেখাতে পারেননি। দুই স্ট্রাইকার নিয়ে ৪-৪-২ ফরমেশনে দল সাজিয়েছিলেন অস্কার। বার্কোস আর কলিনদ্রেস জুটির সামনে টিসির রক্ষণভাগকে দেখে মনে হচ্ছিল রীতিমতো অসহায়। বার্কোসের প্রথম দুটি গোল হেডে। ১৮ মিনিটে বাম প্রান্ত থেকে ড্যানিয়েল কলিনদ্রেসের ক্রসে দূরের পোস্ট থেকে দুই ডিফেন্ডারের মাঝখান থেকে লাফিয়ে উঠে হেড করে দলকে এগিয়ে দেন ১-০ গোলে। কিন্তু পর মুহূর্তেই পেনাল্টি পেয়ে যায় টিসি স্পোর্টস। আলী আশফাককে বক্সের মধ্যে ফাউল করেছিলেন ইয়াসিন খান। গোলরক্ষক আনিসুর রহমান পেনাল্টি ঠেকিয়ে দিলেও ফিরতি শটে ইসমাঈল ঈসা গোল করেন। ২৬ মিনিটেই আবার এগিয়ে যায় বসুন্ধরা। বিপলু আহমেদের ক্রসে গোলমুখ থেকে হেডে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন বার্কোস। ৫০ মিনিটে আবারও পেনাল্টি পায় টিসি। কিন্তু এ যাত্রায় আনিসুর রহমান দেখান তার পেনাল্টি ঠেকানোর ক্ষমতা। ঈসার শট ঠেকিয়ে দেন তিনি। কিন্তু গোললাইন থেকে এগিয়ে এসে ঠেকানোয় নতুন করে শট নেয়ার সুযোগ পান ঈসা। সেটিও দারুণ দক্ষতায় ডানদিকে ঝাঁপিয়ে ফিরিয়ে দেন উদীয়মান এই গোলরক্ষক। বার্কোস শো যেন থামছিলই না। ৬৭  মিনিটে এবার পেনাল্টি পায় কিংসরা। বক্সের ভেতরে কলিন্দ্রেসকে ফেলে দেন আবদেল রাহিম। রেফারি পেনাল্টির নির্দেশ দিলে গোল করতে ভুল হয়নি বার্কোসের। ঠাণ্ডা মাথায় ডান পায়ের গড়ানো শটে লক্ষ্যভেদ করেন এই আর্জেন্টাইন (৩-১)। বার্কোসের দিনে কলিনদ্রেসই বা পিছিয়ে থাকবেন কেন! ৬৮ মিনিটে বিশ্বনাথের ক্রস থেকে হেডে স্কোরলাইন ৪-১ করেন এই কোস্টারিকান তারকা। কিন্তু তখনো বার্কোস ম্যাজিকের বাকি। ৯০ মিনিটে ব্যক্তিগত চতুর্থ গোলটি করে ফেলেন তিনি। এএফসি কাপের গেলে আসরে মানাং মার্সিয়াদিংকে ৫-০ গোলে হারিয়েছিল ঢাকা আবাহনী। এশিয়ার দ্বিতীয় সেরা ক্লাব আসর এএফসি কাপে এবারই প্রথম অংশ নিচ্ছে বসুন্ধরা। টিসি স্পোর্টস ছাড়া ‘ই’ গ্রুপে তাদের অন্য দুই প্রতিপক্ষ মালদ্বীপের মাজিয়া ও ভারতের চেন্নাই সিটি। আগামী ১৪ই এপ্রিল দ্বিতীয় ম্যাচে মাজিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবেন বার্কোস-কলিনদ্রেসরা।