রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে বাংলাদেশে আসছেন মিয়ানমারের মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে রাখাইনের নিরাপত্তা নিশ্চিতের উপর গুরুত্বারোপ করেছেন, মিয়ানমার সরকারের রাখাইন বিষয়ক পরামর্শক কমিটির চেয়ারম্যান সুরাকিরাত সাথিরথাই। মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, নিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি এ বিষয়ে রোহিঙ্গাদের আশ্বস্ত করার দায়িত্বও মিয়ানমার সরকারের। এদিকে, এ সপ্তাহেই রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শনে বাংলাদেশে আসছেন মিয়ানমারের সমাজকল্যাণ মন্ত্রী উইন মিয়াত আয়ে।

 জীবন বাঁচাতে এখনো রাখাইন ছাড়ছে মিয়ানমারের রোহিঙ্গারা। মঙ্গলবার মালয়েশিয়ার জলসীমায় প্রবেশের পর ৫৬ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশুবহনকারী নৌকাটি আটক করে দেশটির নৌ বাহিনী। পরে তাদের মালয়েশিয়ার অভিবাসন কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এর আগে, রোববার ঝড়ের কবলে পড়ে থাইল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলে বিকল হয়ে পড়ে রোহিঙ্গাবাহী নৌকাটি। পরে নৌযানটি ঠিক করে প্রয়োজনীয় খাবার এবং জ্বালানি দিয়ে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যেতে সহায়তা করে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

নতুন পুরোনো মিলিয়ে অন্তত ১১ লাখ রোহিঙ্গা বাস করছে বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায়। আশপাশের দেশগুলোতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে আরও অনেকে। বাংলাদেশের সঙ্গে করা রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চুক্তি অনুযায়ী গেলো জানুয়ারি থেকে এ কার্যক্রম শুরুর কথা থাকলেও এখনো তা আলোর মুখ দেখনি। এ অবস্থায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ও সঙ্কট সমাধানে রাখাইনের নিরাপত্তা নিশ্চিতের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন মিয়ানমার সরকারের রাখাইন বিষয়ক পরামর্শক কমিটির চেয়ারম্যান।

মিয়ানমারের সমাজকল্যাণমন্ত্রী উইন মিয়াত আয়ের আসন্ন বাংলাদেশ সফরকেও ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন দেশটির রাখাইন বিষয়ক পরামর্শক কমিটির চেয়ারম্যান। দিনক্ষণ ঠিক না হলেও খুব শিগগিরই তিনি রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে আসবেন বলে জানানো হয়।

এদিকে, রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে বাংলাদেশ-মিয়ানমারের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ওপর গুরুত্বারোপ কোরে, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে গঠনমূল পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে চীন।