দুদকের তদন্তে বিএনপির মাথা খারাপ হয়ে গেছে: হানিফ

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা কোনো ষড়যন্ত্রের কারণে ১২৫ কোটি টাকা লেনদেন করেছেন কি না, তা দেখার দায়িত্ব সরকারের বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। তিনি বলেছেন, দুদকের এই তদন্তে বিএনপির মাথা খারাপ হয়ে গেছে।

আজ বুধবার বিকেলে গুলিস্তানে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে এক আলোচনা সভায় মাহবুব উল আলম হানিফ এ মন্তব্য করেন। ২৬ মার্চ স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে জাতীয় শ্রমিক লীগ এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপি বলছে সরকার দুদক দিয়ে বিএনপি নেতাদের চরিত্র হনন করছে। তিনি বলেন, বিএনপি অনেক আগেই তাদের চরিত্র হারিয়ে ফেলেছে। বাংলাদেশের মানুষকে ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করার সুযোগ নেই।

আজ বুধবার বিএনপির শীর্ষ আট নেতাসহ ১০ জনের ব্যাংক হিসাবের তথ্য চেয়ে সাত ব্যাংকে চিঠি পাঠিয়েছে দুদক।

আওয়ামী লীগ নেতা হানিফ বলেন, একসঙ্গে ১২৫ কোটি টাকা উত্তোলন করা হয়েছে কোনো ষড়যন্ত্রের কারণে, এটা খোঁজ নেওয়ার দায়িত্ব সরকারের আছে। দুদক তলব করেছে, বৈধভাবে টাকা খরচ করে থাকলে আপনাদের (বিএনপি) ভয় কীসের? দুদক তো নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে। তার প্রমাণ এই সরকারের এমপি-মন্ত্রীদেরও তলব করছে দুদক।

এ সময় খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার বিষয়ে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের জবাবে হানিফ বলেন, ‘আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলনের কোনো সুযোগ নেই। আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে রায় পরিবর্তন করা যায় না। পৃথিবীর ইতিহাসে এমন কোনো নজির নেই। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হলে আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমেই আপনাদের যেতে হবে। তিনি আরও বলেন, আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না। যাঁরা এমন দিবাস্বপ্ন দেখছেন, হুমকি দিচ্ছেন, তাঁদের স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই, আইনি লড়াই ছাড়া খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার দ্বিতীয় কোনো পথ নেই। দুর্নীতিবাজ নেত্রীকে মুক্ত করার আন্দোলন বাংলাদেশের জনগণ বরদাশত করবে না।’

জাতীয় শ্রমিক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি সামসুল আলমের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।