রাজিবের পরিবারকে দিতে হবে ১ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

রাজধানীতে দুই বাসের রেষারেষিতে হাত হারিয়ে মারা যাওয়া তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব হাসানের পরিবারকে এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে বিটিআরসি ও স্বজন পরিবহনকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ক্ষতিপূরণের ১ কোটি টাকার মধ্যে বিআরটিসিকে দিতে হবে ৫০ লাখ টাকা এবং স্বজন পরিবহনকে দিতে হবে বাকি ৫০ লাখ টাকা।

এ সময় আদালতে রাজীবের দুই ভাই মেহেদী হাসান ও আবদুল্লাহ তার খালা জাহানারা পারভীন ও মামা জাহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

গত ৩ এপ্রিল দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের সার্ক ফোয়ারা মোড়ে দুই বাসের রেষারেষিতে হাত হারান তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজিব হোসেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

দুর্ঘটনার পরদিন বুধবার ৪ এপ্রিল হাইকোর্টে রাজিবের জন্য ক্ষতিপূরণ চেয়ে একটি আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল। সেই আবেদনের শুনানি করে ১ কোটি টাকা কেন ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে রাজীবের চিকিৎসার সমস্ত ব্যয় বহনের জন্য বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ ও স্বজন পরিবহনের মালিককে নির্দেশ দেয় আদালত।

চার সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, সড়ক পরিবহন সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি), ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) চেয়ারম্যান, স্বজন পরিবহনের মালিকসহ আটজনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

২০১২ সালে এইচএসসি পাস করার পর রাজীব তার ভাইদের লেখাপড়ার খরচ জোগার করার জন্যে গ্রাফিক্স ডিজাইনিংয়ের কাজ শুরু করেন। মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় স্বপ্নপূরণের আগেই রাজিব চলে যান না ফেরার দেশে।