চার মাসে বিচারবহির্ভূত হত্যার শিকার ৭৩

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

বিচারবহির্ভূত হত্যা চলছেই। গত তিন দিনে ক্রসফায়ার ও বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন ১২ জন। পুলিশ ও র‌্যাবের দাবি নিহতরা অপরাধী। তাদের মধ্যে সন্ত্রাসী, মাদক কারবারি ও পেশাদার দুর্বৃত্ত রয়েছে। বরিশাল, ফেনী, দিনাজপুর, যশোর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে এ ঘটনাগুলো ঘটেছে। অনুসন্ধানে দেখা গেছে, গত চার মাসে বিচারবহির্ভূত হত্যার শিকার হয়েছেন ৭৩ জন। যার মধ্যে ৬৯ জন নিহত হয়েছেন ক্রসফায়ারে। চলতি মাসে যে হারে ক্রসফায়ারের ঘটনা ঘটছে, তা অতীতের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প থেকে দাবি করা হয়েছে, ঘটনার সময় তাদের সদস্যরাও আহত হয়েছেন। 

গত কয়েক দিনে যে সংখ্যক বিচারবহির্ভূত হত্যার ঘটনা ঘটেছে তা আবারো বিষয়টিকে আলোচনায় নিয়ে এসেছে। গত দুই দিন ক্রসফায়ার, বন্দুকযুদ্ধ ও বিচারবহির্ভূত হত্যা নিয়ে মানুষ ফের আলোচনা শুরু করেছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা এ নিয়ে মিডিয়াকর্মীদের নানা প্রশ্নের মুখে পড়ছেন।
বরিশাল সদর উপজেলায় গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ অজ্ঞাত পরিচয়ে এক যুবক (৩৮) নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, একটি রামদা, একটি চাপাতি, ৮ রাউন্ড গুলির খালি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। 


পুলিশ জানায়, শনিবার রাত ৩টায় শায়েস্তাবাদ সংলগ্ন নদীতে আলো দেখতে পেয়ে ডিবি পুলিশের একটি দলের সন্দেহ হয়। তারা কাছাকাছি এগিয়ে গেলে ডাকাত সদস্যরা ডিবি পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে। এ সময় ডিবি পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। কিছু সময় পর ডাকাত সদস্যরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলের পাশে একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়। বয়স আনুমানিক ৩৮ বছর। ওসি বলেন, এ ঘটনায় ডিবি পুলিশের এসআই দেলোয়ার, কনস্টেবল রফিক ও হাফিজ আহত হন। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ দিকে শায়েস্তাবাদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আরিফুজ্জামান মুন্না জানান, নিহত ডাকাত সদস্যকে স্থানীয়রা কেউ চিনতে পারেননি। তবে কয়েক দিন আগে আবদুল হক হাওলাদারের বাসায় যে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে সে সময় এ যুবককে তিনি দেখেছিলেন বলে জানিয়েছেন।