হুয়াওয়ের ৪০ মেগাপিক্সেলের ফোন বাংলাদেশে

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

হুয়াওয়ের সর্বশেষ ফ্লাগশিপ ডিভাইস পি টোয়েন্টি প্রো বাংলাদেশের বাজারে বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে হুয়াওয়ে কনজ্যুমার গ্রুপ বাংলাদেশ। 

আজ বুধবার সকালে রাজধানীর গুলশানের হুয়াওয়ে কাস্টমার সলিউশন ইনোভেশন অ্যান্ড ইন্ট্রিগেশন সেন্টারে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ফোনটি বিক্রির জন্য প্রি-অর্ডার ঘোষণা করা হয়। 

ফোনটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৮২ হাজার ৯৯০ টাকা। ফোনটির সঙ্গে গ্রামীণফোনের আকর্ষণীয় প্যাকেজ রয়েছে।

আলোকচিত্রী প্রীত রেজার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, হুয়াওয়ে ফোনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর সাকিব আল হাসান, হুয়াওয়ের কনজ্যুমার বিজনেস গ্রুপ বাংলাদেশের ডিরেক্টর অ্যারন, গ্রামীণফোনের ডেপুটি সিইও এবং সিএমও ইয়াসির আজমনসহ অন্যান্যরা।

সাকিব আল হাসান বলেন, ‘আমি গতকালই ফোনটি হাতে পেয়েছি। এটি আমাকে অসাধারণ অভিজ্ঞতা দিয়েছে। আশা করি ফোনটি গ্রাহকদেরও সন্তুষ্ট করতে পারবে।

অ্যারন বলেন, ‘লেইকার ক্যামেরার সমন্বয়ে স্মার্টফোন ফটোগ্রাফিতে নতুন মাত্রা যোগ করবে হুয়াওয়ে পি টোয়েন্টি প্রো।’

২৭ মার্চ ফ্রান্সের প্যারিসে পি টোয়েন্টি প্রো আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ব বাজারে বিক্রির ঘোষণা দেয়। আন্তর্জাতিক বাজারে এর দাম ৮৯৯ ইউরো।

সব মিলিয়ে পি টোয়েন্টি প্রো ফোনটিতে ৪০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। এতে ফাইভ এক্স হাইব্রিড জুম ফিচার রয়েছে।

ফোনটির রিয়ারে আছে তিনটি ক্যামেরা। এর মধ্যে একটি ২০ মেগাপিক্সেলের মনোক্রোম লেন্স। একটি ৮ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো লেন্স এবং ৪০ মেগাপিক্সেলের আরজিবি লেন্স।

সেন্সর তিনটিতে এফ/১.৬ এবং এফ/২.৪ অ্যাপারচার রয়েছে। ফোনটির সেলফি ক্যামেরাও দুর্দান্ত। এতে ২৪ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা সংযোজন করা হয়েছে।  এসব ক্যামেরা লেইকার তৈরি। 
হুয়াওয়ের নতুন এই ফ্লাগশিপ ফোনটিতে আছে ৬.১ ইঞ্চির ওলিড ডিসপ্লে। ফুল এইচডি ডিসপ্লের রেজুলেশন ২২৪০x১০৮০ পিক্সেল। ডিসপ্লের অ্যাসপেক্ট রেশিও ১৯:৯। ডিসপ্লেতে আইফোনের মতই নচ ফিচার সংযোজন করা হয়েছে। 

৭.৬৫ মিলিমিটার পুরুত্বের ফোনটি ওজন ১৭৪ গ্রাম। এটি আইপি ৬৭ সনদপ্রাপ্ত। অর্থাৎ ফোনটি পানি ও ধুলোরোধী। 

প্রিমিয়াম ডিজাইনের পি ২০ প্রো ফোনটিতে ব্যাকআপের জন্য ৪০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি রয়েছে। কানেকটিভিটির জন্য রয়েছে ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। এর স্টোরেজ ১২৮ জিবি।  

৬ জিবি র‌্যামের এই ফোনটি বাংলাদেশের বাজারে দুইটি রঙে পাওয়া যাবে। এটি কেনার জন্য গ্রামীণফোন আজ থেকে প্রি অর্ডার নেয়া শুরু করেছে। ৩ জুন পর্যন্ত প্রি-অর্ডার চলবে। ক্রেতারা ফোনটি হাতে পাবেন ৫ জুন।