বাজেট অধিবেশন প্রথম দিনের মতো মুলতবি

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম


দশক জাতীয় সংসদের শেষ অর্থবছরের বাজেট অধিবেশন প্রথম দিনের মতো মুলতবি করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ অধিবেশন শুরু হয়। কার্য উপদেষ্টা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, চলতি সংসদের একবিংশতম এ অধিবেশন চলবে ১২ জুলাই পর্যন্ত।

অধিবেশনের শুরুতে স্পিকার সব সংসদ সদস্যসহ দেশবাসীকে রমজানের শুভেচ্ছা জানান এবং বাজেটেরে ওপর সংসদ সদস্যদের অর্থবহ আলোচনা করার আহ্বান করেন।

এরপর স্পিকার চলতি অধিবেশনের সভাপতিমণ্ডলী মনোনীত করেন। স্পিকার বা ডেপুটি স্পিকারের অনুপস্থিতিতে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যদের মধ্যে অগ্রবর্তীজন সংসদ পরিচালনা করবেন। অধিবেশনে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যরা হলেন- আবুল কালাম আজাদ, শামসুল হক টুকু, মাহবুব আলী, ফখরুল ইমাম ও সফুরা বেগম।

পরে জাতীয় পার্টির জ্যেষ্ঠ সংসদ সদস্য এ কে এম মাঈদুল ইসলামের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন স্পিকার। গত ১০ মে মারা যান মাঈদুল ইসলাম। 

এছাড়া সাবেক সংসদ সদস্য এম শামসুল ইসলাম, মামদুদুর রহমান, এবিএম শাজহাজান, সৈয়দ ওয়াহিদুল আলম, মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন, খন্দকার মু. খুররম, আমিনা বারী, চমন আরা বেগম, সংসদ সচিবালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারিক মো. ইকবালের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়।

শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনা করেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, আ স ম ফিরোজ, প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশীদ, মসিউর রহমান রাঙ্গা, ফখরুল ইমাম, তাজুল ইসলাম, রওশন আরা মান্নান, নুরুল ইসলাম ওমর, নুর-ই হাসনা লিলি চৌধুরী।

একই সঙ্গে অধিবেশনে কবি বেলাল চৌধুরী, বিচারপতি আমিরুল কবীর চৌধুরী, ভাষাসংগ্রামী জাতীয় অধ্যাপক মুস্তাফা নূর উল ইসলাম, ভাষাসৈনিক চান্দু মিয়া, বীরপ্রতীক হামিদুল হক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক আবুল খায়ের চৌধুরীর মৃত্যুতে সংসদে শোক প্রকাশ করা হয়।

সম্প্রতি আলজেরিয়া ও কিউবায় বিমান বিধ্বস্তে এবং দেশ-বিদেশের বিভিন্ন স্থানে দুর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণেও শোক প্রকাশ করে সংসদ। রেওয়াজ অনুযায়ী, শোক প্রস্তাব গ্রহণের পর আজকের দিনের মতো অধিবেশন মুলতবি করা হয়।

অধিবেশনে আগামী ৭ জুন আসন্ন ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ভোটের বছরে বর্তমান সরকারের শেষ বাজেটের আকার চার লাখ ৬০ হাজার কোটি টাকার মত হতে পারে বলে আগেই আভাস দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। বাজেট উপস্থাপনের পর পুরো অধিবেশনজুড়ে এর উপর আলোচনা করবেন সংসদ সদস্যরা। সংবিধান অনুযায়ী ৩০ জুনের মধ্যেই নতুন অর্থবছরের বাজেট পাস করতে হবে।

সংসদ সচিবালয় সূত্র জানায়, সংসদের অন্যান্য অধিবেশন বিকেলে বসলেও রোজার মধ্যে প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সংসদের বৈঠক বসবে। রোজার পরে বিকেল ৩টা থেকে বৈঠক শুরু হবে।

অধিবেশন শুরুর আগের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের কার্য-উপদেষ্টা কমিটির সভা হয়েছে। এতে বাজেট অধিবেশন ১২ জুলাই পর্যন্ত চলার ও বাজেটের ওপর ৪০ ঘণ্টা আলোচনার সিদ্ধান্ত হয়। ঈদ উপলক্ষে ১৩ থেকে ১৭ জুন পর্যন্ত অধিবেশন মুলতবি থাকবে।

বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, প্রয়োজনে অধিবেশনের সময়সীমা বাড়াতে বা কমাতে পারবেন স্পিকার। সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সভায় অংশ নেন।