কলেজছাত্র হত্যায় আশুলিয়ায় মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

ঢাকার অদূরে আশুলিয়ায় সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত সাভার কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী কল্যাণ সরকার হৃদয়'র হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করে দ্রুত শাস্তির দাবিতে আশুলিয়ায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে শিক্ষার্থীরা।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ক্লাস বন্ধ রেখে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আশুলিয়ার ডেইরি ফার্ম এলাকায় ডেইরি ফার্ম উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। মানববন্ধনে ওই স্কুলের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

মানববন্ধন থেকে শিক্ষার্থীরা অবিলম্বে ওই শিক্ষার্থী হত্যাকাণ্ডের মূল আসামি সাভার ডেইরি ফার্ম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুসকে গ্রেপ্তার করে শাস্তির দাবি জানায়। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে অভিযুক্ত শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুসকে গ্রেপ্তার না করা হলে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে কঠোর আন্দোলন দেওয়ার ঘোষণা দেয় শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা বলে, স্কুলের অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় ওই স্কুল শিক্ষক সন্ত্রাসীদের দিয়ে পিটিয়ে হৃদয়কে হত্যা করেছেন। এ ঘটনায় ওই শিক্ষক ও পাাঁচ সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে নিহতের মা আশুলিয়া থানায় একটি মামলা করলে পুলিশ ওই শিক্ষককে আটকও করে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে পুলিশ তাকে পরে ছেড়ে দেয়। এখন ওই শিক্ষক বাসায় তালা ঝুলিয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন।

আশুলিয়া থানার ওসি আব্দুল আউয়াল বলেন, এলাকায় মাদকবিরোধী একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল। ওই কমিটির সভাপতি হচ্ছেন ডেইরি ফার্ম স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুস। গত ২০ জুন হৃদয় ও মামুন ওই এলাকায় মাদক সেবন করতে গেলে মাদকবিরোধী কমিটির লোকজন ও প্রধান শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুস তাদেরকে মারধর করেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হৃদয় মারা যান। স্কুল শিক্ষককে ছেড়ে দেওয়ার ব্যাপারে  তিনি বলেন, মারধরের ঘটনায় ওই শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য থানায় আনা হয়েছিল। তখন মামলা না হওয়ায় জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে, এ ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ডেইরি ফার্ম স্কুলের শিক্ষকরা জরুরি বৈঠকে বসেছেন। বৈঠকে ওই শিক্ষককে বহিষ্কার করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন ডেইরি ফার্ম স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ মিয়া।

উল্লেখ্য, গত ২০ জুন কলেজ ছাত্র হৃদয় ও তার বন্ধু মামুন সন্ধ্যার দিকে একটি মোটরসাইকেলযোগে ডেইরি ফার্ম এলাকা থেকে বাসায় যাচ্ছিলেন। তারা সন্দ্বীপ এলাকায় পৌঁছালে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসীরা তাদেরকে গতিরোধ করে দুজনকেই বেধড়ক মারপিট করে। হৃদয়কে আশঙ্কাজনক অবস্থায় এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে  চিকিৎসাধীন অবস্থায় হৃদয় মঙ্গলবার সকালে মারা যান।

নিহত হৃদয় যে কলেজে পড়ালেখা করতেন সেই সাভার কলেজের সহপাঠীরা একই দাবিতে বুধবার দুপুরে সাভার প্রেস ক্লাবের সামনে একটি মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।