খালেদার জামিন আবেদন বৃহস্পতিবারের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

বাস পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থানায় করা মামলায় বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জামিন হয়নি । তবে বিষয়টি আগামী ২৬ জুলাইয়ের মধ্যে নিম্ন আদালতকে নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এ বিষয়ে শুনানি শেষে আদেশের জন্য গতকাল দিন ধার্য ছিল।

খালেদা জিয়ার আবেদনের পক্ষে হাইকোর্টে শুনানি করেন আইনজীবী জয়নুল আবেদীন, এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন এবং এ কে এম এহসানুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এ আদালতের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. বশিরুল্লাহও তার সঙ্গে ছিলেন।

এ বিষয় খালেদা জিয়ার আইনজীবী একে এম এহসানুর রহমান জানান, এ মামলায় গত ১ জুলাই বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন কুমিল্লার একটি আদালত। তবে, সেই আদালতে জামিন চেয়ে করা আবেদন শুনানির জন্য আগামী ৮ আগস্ট শুনানির দিন ঠিক রয়েছে। যেহেতু খালেদার জামিন না দিয়ে এবং আবেদন নিষ্পত্তি না করে শুনানির জন্য পরবর্তী দিন ঠিক করা হয়েছে, সেহেতু বিষয়টি নিয়ে হাইকোর্টে আপিল করা হয়।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ বলেন, এ মামলায় গত ১ জুলাই খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার দেখিয়ে জামিনের আবেদনের শুনানির জন্য আগামী ৮ আগস্ট বহাল রাখেন কুমিল্লার আদালত। এরপর খালেদা জিয়া হাইকোর্টে এ মামলায় জামিন আবেদন করেছেন। এ আবেদন রোববারের (কজলিস্টে) কার্যতালিকায় রয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি রাত আনুমানিক সাড়ে তিনটার দিকে কক্সবাজার থেকে ঢাকাগামী আইকন পরিবহনের একটি বাস কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জগমোহনপুর এলাকায় আসামাত্র দুর্বৃত্তরা পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে। এতে ঘটনাস্থলে সাতজন ও হাসপাতালে নেওয়ার দুদিন পর আরও একজনসহ মোট আটজন মারা যান ও ২৭ জন আহত হন। এ ঘটনায় ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে চৌদ্দগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নুরুজ্জামান হাওলাদার বাদী হলে দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলা তদন্ত করেন চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই মো. ইব্রাহিম।