ডিসিদের প্রস্তাবে আশ্বাস মন্ত্রীদের

July 26, 2018, 11:01 am নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কাছ থেকে পাওয়া প্রস্তাব বাস্তবায়নের আশ্বাস দিলেন মন্ত্রীরা। একই সঙ্গে কোনো মহলের চাপের কাছে মাথা নত না করে কাজ করতে ডিসিদের নির্দেশ দিয়েছেন সরকারের দায়িত্বপ্রাপ্ত কয়েক জন মন্ত্রী। গতকাল ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, পানিসম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনসহ কয়েক জন মন্ত্রীর সেশনে ডিসিরা বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চান, সমস্যার কথা বলেন। এর উত্তরে মন্ত্রীরা আশ্বাস দেন। ডিসিদের সঙ্গে সেশন শেষে বাইরে বেরিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি ডিসিদের বলেছি, আপনারা মন্ত্রী বা ভিআইপির এত প্রটোকল দিতে গেলে প্রশাসনিক কাজ করবেন কখন? কাজেই প্রটোকল এত দরকার নেই। আমি ও রেলমন্ত্রী বলেছি, আমাদের এত প্রটোকলের দরকার নেই।

তাহলে কি প্রটোকল কমাতে বলেছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, কমানো উচিত। না হলে ওরা (ডিসি) কাজ করবে কীভাবে? আর গভর্নমেন্টের শেষ বছর এটি। এখনো অনেক কাজ বাকি আছে ডিসি-এসপিদের। সমস্যা তো হচ্ছে। আর ইলেকশন তো চলছে। ইলেকশন গ্রহণযোগ্য করতে তাদের অনেক কাজ। আজও তো ইলেকশনে অংশ নিয়েছে বিএনপি। গ্রহণযোগ্য ইলেকশন হচ্ছে। মন্ত্রী বলেন, যে রাস্তাগুলো সচল থাকলে মানুষ খুশি থাকবে সেগুলোর ব্যাপারে উদ্যোগ নিতে ডিসিদের বলেছি। বিশেষ করে ঈদুল আজহা সামনে। ভারি বর্ষণের সঙ্গে ভারী পরিবহন, এর সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে পশুর হাট। তার সঙ্গে আছে পশুবাহী পরিবহন। এর সঙ্গে এখন রং সাইটে চলাচল। রাস্তায় ইজিবাইক, ব্যাটারিচালিত রিকশা এসব বিষয়ে ডিসিদের আমি বলেছি। তারা রমজানের ঈদের সময়ও ভালো দায়িত্ব পালন করেছেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, একটা বিষয় অত্যন্ত পরিষ্কার। নির্বাচনের শিডিউল পৌনে তিন মাসের মতো সময় আছে। কাজেই তাদের প্রতি সরকারের জেনারেল মেসেজ সেটা সরকার প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জেলা প্রশাসক সম্মেলন উদ্বোধন করতে গিয়ে দিয়েছেন। আমরা মন্ত্রীরা সেখানে ছিলাম। ফলে সরকার প্রধানের মেসেজটাই আমাদের বক্তব্য। এর বাইরে আমরা কিছু মনে করি না। স্থানীয় সরকারের সঙ্গে প্রশাসনের কোনো সমন্বয়হীনতা নেই জানিয়ে ডিসি সম্মেলনের পর স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আমি তো স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী। কিছু কিছু কাজে মতানৈক্য আছে, তবে সমন্বয়হীনতা আছে এটা আমার জানা নেই। মতবিরোধ তো আমার সঙ্গে আমার সচিবেরও হয়, সেটা তো বড় বিষয় নয়। তবে কোনো ধরনের সমন্বয়হীনতা তৈরি হয়নি। নির্বাচনে ডিসিদের ভূমিকা নিয়ে কথা হয়েছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। এসময় আইনশৃঙ্খলার বিষয়টি অত্যন্ত সূচারুরূপে দেখতে হবে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি কোনো সময়ই করার সুযোগ নেই। তবে এটা নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিস্তারিত আলোচনা করবে। এলজিআরডি মন্ত্রী বলেন, যেহেতু স্থানীয় সরকারগুলো নিয়ন্ত্রণ করেন দেশের জেলা প্রশাসক ও কমিশনাররা, তাদের সঙ্গে আমাদের অনেক বিষয়ে কথা বলার থাকে। ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ ও অনেকগুলো পৌরসভা ডিসিরা নিয়ন্ত্রণ করেন। বিভাগীয় কমিশনাররা সিটি করপোরেশন ও বেশকিছু পৌরসভা নিয়ন্ত্রণ করে। কাজেই তারা আমাদের মন্ত্রণালয়ের প্রত্যেকটা কাজের সঙ্গে জড়িত। সেই সুবাদে তাদের যেসব পরামর্শ সেগুলো আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এদিকে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) সম্মেলনে কোনো নির্দেশ না দিয়ে ‘গল্প করেন’ বলে জানিয়েছেন পানিসম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। বৈঠক শেষে পানিসম্পদ মন্ত্রীর কাছে ডিসিদেরকে কী নির্দেশনা দিয়েছেন- জানতে চাইলে জবাবে পানিসম্পদ মন্ত্রী বলেন, আমি কোনো নির্দেশ দেই না, গল্প করি। মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে ডিসিরা কোনো সমস্যার কথা জানিয়েছেন কিনা- এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, তা তো বলবো না। তবে পটুয়াখালীর কুয়াকাটা পর্যটন কেন্দ্রে সমুদ্র পার ভেঙে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন পিরোজপুরের ডিসি। বলেছেন, ওই এলাকার বাঁধটা নির্মাণ করা প্রয়োজন। মন্ত্রী এই তথ্য জানিয়ে বলেন, পিরোজপুর অঞ্চলের নদ-নদীতে সামুদ্রিক লোনা পানি চলে আসছে বলেও জানিয়েছেন ডিসি। এতে ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে। এটার জন্য ব্যবস্থা নিতে হবে। এছাড়া এদিনের সেশনে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রীসহ সরকারের আরো কয়েক জন মন্ত্রী অংশ নেন।