মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডপ্রাপ্ত কুদ্দুসকে বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে স্থানান্তরের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ২০ বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত নোয়াখালীর সুধারামের আব্দুল কুদ্দুসকে কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে স্থানান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে হাসপাতালটির সংশ্লিষ্ট বিভাগের চিকিৎসকদের আব্দুল কুদ্দুসের অসুস্থতার বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। ওইদিন তার জামিন বিষয়ে আদেশ দিবেন আপিল বিভাগ।

ক্যান্সারে আক্রান্ত আব্দুল কুদ্দুসের জামিন আবেদনের ওপর আজ রোববার শুনানি শেষে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ আদেশের জন্য এদিন ধার্য করেন। আব্দুল কুদ্দুসের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন এবং রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

এ বিষয়ে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় সাজাপ্রাপ্ত একজন আসামি অসুস্থতার গ্রাউন্ডে জামিন আবেদন করেছেন। মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত এই প্রথম কোনো আসামির জামিন আবেদন করা হয়েছে আপিল বিভাগে।

খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, আসামির বয়স ৮৭ বছর, তার ফোর স্টেজের ক্যান্সার। উনি একা হাঁটাচলা করতে পারেন না। কারও সহযোগিতা ছাড়া চলা সম্ভব হয় না। তাই আসামির জামিন চাওয়া হয়।

গত ১৩ মার্চ এই মামলায় তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং একজনকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। এদের মধ্যে আমির আলী, মো. জয়নাল আবদিন ও আবুল কালাম ওরফে এ কে এম মনসুরের মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেওয়া হয়। একই মামলায় অপর আসামি মো. আব্দুল কুদ্দুসকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।