ফাঁকা ঢাকায় উপচে পড়া ভিড় বিনোদন কেন্দ্রে

August 25, 2018, 2:51 pm নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

পবিত্র ঈদুল আজহার নির্ধারিত তিন দিন ছুটি শেষ হয়েছে বৃহস্পতিবার। শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় ছুটির আমেজ এখনো কাটেনি রাজধানীবাসীর। ঈদের ছুটি কাটাতে নাড়ির টানে গ্রামের বাড়িতে ছুটে যাওয়াদের বেশির ভাগই এখনো ফেরেননি ঢাকায়। যে কারণে ঢাকা এখন অনেকটাই ফাঁকা। নেই চিরচেনা যানজট আর মানুষের পদচারণা। আর ফাঁকা ঢাকায় অনেকেই ভিড় করছেন নগরীর বিণোদনকেন্দ্রগুলোতে।

বুধবার ঈদুল আজহার দিন সকালে নামাজ, পশু কোরবানি আর দিনভর শুভেচ্ছা বিনিময়ের মাধ্যমে ব্যস্ততায় ঈদ কেটেছে সবার। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই বিণোদনকেন্দ্রগুলো হয়ে ওঠে বিভিন্ন বয়সী মানুষের পদচারণায় মুখরিত। এ চিত্র ছিল গতকালও। শাহবাগ শিশুপার্ক, জাতীয় জাদুঘর, মিরপুর চিড়িয়াখানা, সিনেপ্লেক্স ও সিনেমাহলগুলোতে লক্ষ্য করা গেছে উপচেপড়া ভিড়। এ ছাড়া দৃষ্টিনন্দন হাতিরঝিল, রমনা পার্ক, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, বোটানিক্যাল গার্ডেন, চন্দ্রিমা উদ্যানে সকাল থেকে রাত অবধি ছিল বেড়ানো ও জমজমাট আড্ডা। আগারগাঁওয়ে বিমানবাহিনী জাদুঘর, লালবাগের কেল্লা, জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে মানিক মিঞা এভিনিউ এলাকা, আহসান মঞ্জিল, শ্যামলী শিশুমেলা, বলধা গার্ডেন, ধানমন্ডি লেকসহ বিনোদনকেন্দ্র ও স্থাপনাগুলোতে সকাল থেকে বিভিন্ন বয়সী মানুষের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিড়ও বাড়তে থাকে। সবার মধ্যে ছিল ঈদ আনন্দের উচ্ছ্বাস। গতকাল রাজধানীর শাহবাগের শিশু পার্কের প্রবেশপথসহ এর আশপাশ এলাকায় শিশু ও তাদের অভিভাবকদের ঢল নামে। সকালে শিশু পার্কে তেমন ভিড় না থাকলেও দুপুরের পর থেকেই শিশুদের আনাগোনা ও কলকাকলিতে মুখর হয়ে উঠে শিশুপার্ক। প্রতিটি রাইডে দীর্ঘ লাইন দেখাগেছে।

‘টয় ট্রেন’, ‘ম্যাজিক নৌকা’, ‘আনন্দ ঘূর্ণি, ‘ঝুলন্ত চেয়ার, ‘উড়ন্ত নভোযান’সহ বিভিন্ন রাইডে চড়ে ঈদের আনন্দ উপভোগ করেছে শিশুরা। তাদের আনন্দ ছুঁয়ে গেছে তাদের সঙ্গে আসা বাবা মা আর স্বজনদেরকেও। শিশুপার্কের দায়িত্বরতরা বলছেন, এমনিতে বেলা ২টা থেকে শিশু পার্ক খোলা হলেও ঈদুল আজহা উপলক্ষে বুধবার থেকে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত শিশুদের এই বিণোদনকেন্দ্রটি খোলা থাকছে। বুধবার ঈদের দিন মিরপুর ১ নম্বর চিড়িয়াখানার দর্শনার্থীদের জন্য সকাল ৯টায় গেট খুলে দেয়া হয়। ওই দিন দর্শনার্থীদের ভিড় ছিল কিছুটা কম। তবে, বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার সকাল থেকেই বিভিন্ন বয়সী মানুষের ভিড় জমে চিড়িয়াখানায়। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, ঈদ উপলক্ষে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে দুই জোড়া আফ্রিকান সাদা সিংহ, এক জোড়া কালো ভালুক আনা হয়েছে এই চিড়িয়াখানায়। এ ছাড়া চিড়িয়াখানার অভ্যন্তরে থাকা প্রাণী জাদুঘরেও ছিল দর্শনার্থীদের ভিড়।


ঈদুল আজহা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় জাদুঘর দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হয়। এরপর থেকেই জাদুঘরের বিভিন্ন নিদর্শন দেখতে বিভিন্ন বয়সী মানুষ ভিড় করে। গতকাল শুক্রবারও দর্শনার্থীদের এ ভিড় ছিল জাতীয় জাদুঘরে। রাজধানীর দৃষ্টিনন্দন হাতিরঝিল বিনোদনকেন্দ্রগুলোর মধ্যে অন্যতম। প্রতিটি ঈদের আনন্দে সৌন্দর্যমণ্ডিত হাতিরঝিল বাড়তি মাত্রা যোগ করে। ঈদ আনন্দকে কেন্দ্র করে বিনোদনপিয়াসীরা সময় কাটাতে আসেন হাতিরঝিলে। গতকাল সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত নগরবাসীর পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে হাতিরঝিল এলাকা। বিনোদনপ্রেমীরা উপভোগ করেছেন হাতিরঝিলের নানা সৌন্দর্য। ঈদ উপলক্ষে রাজধানীর বাইরে থেকেও অনেকে হাতিরঝিলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসেন। এ ছাড়া অনেকে আনন্দ উপভোগ করতে যান নগরের বিভিন্ন সিনেমা হল ও সিনেপ্লেক্সে। ঈদের দিন থেকে যমুনা ফিউচার পার্কের কার্নিভাল আর ফিউচার ওয়ার্ল্ডে ভিড় ছিল। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার এ ভিড় আরো বেড়েছে। চন্দ্রার নন্দন পার্কে গতকাল সকাল থেকে ওয়াটার ওয়ার্ল্ড ও ড্রাই পার্কের বিভিন্ন রাইডে ছিল উপচে পড়া ভিড়। ঈদ উপলক্ষে শিশুদের জন্য রচনা লেখার প্রতিযোগিতার আয়োজন করে নন্দন পার্ক কর্তৃপক্ষ। পরিবারের সঙ্গে কাটানো ঈদের স্মৃতি নিয়ে শিশুদের সেসব লেখা পার্কে প্রদর্শন করা হয়। এ ছাড়া সায়েদাবাদের ওয়ান্ডারল্যান্ড এবং ঢাকার অদূরে আশুলিয়ার ফ্যান্টাসি কিংডমে পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের নিয়ে অনেকেই ঈদের আনন্দ উপভোগ করেন।