শিমুলিয়ায় পারের অপেক্ষায় শত শত গাড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

নাব্যতা সঙ্কটের কারণে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি সার্ভিস বন্ধ থাকায় পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে ৮ শতাধিক গাড়ি। এতে করে দুর্ভোগে পড়েছেন দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার যাত্রী ও চালকরা।

গতকাল শনিবার রাত ১১টা থেকে সব ধরনের ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। আজ রবিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত একই অবস্থা ছিল। পরে সীমিতভাবে কিছু ফেরি চলা শুরু হয়। কিন্তু তাতে গাড়ির সংখ্যা ছিল কম। এর তাতেই দুই পাড়ে অসংখ্য গাড়ি জমে যায়।

এদিকে ঘাট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নদীতে ড্রেজিং কাজ চলমান থাকায় এ নৌরুটে শনিবার রাত ১১টা থেকে সব ধরনের ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। পাশাপাশি বিকল্প নৌরুট ব্যবহারের জন্য ঘাট কর্তৃপক্ষ পরামর্শ দিয়েছেন।

বিআইডব্লিউটিসির এ জি এম খন্দকার শাহ খালেদ নেওয়াজ বলেন, শুক্রবার এই রুটের ৩টি স্থানে ৬টি ফেরি আটকে যায়। শনিবার ভোরে আরো খারাপ অবস্থা দেখা দেয়। বহরে বর্তমানে ১৮টি ফেরি রয়েছে। ৪টি ফেরি পাটুরিয়ায় পাঠানো হয়েছে। রো রো ফেরিসহ ১০টি ফেরি অলস বসে আছে।

তিনি আরো বলেন, শনিবার ঢাকামুখী মানুষের চাপ বেড়েছে। দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষ ঈদ শেষে ফিরতে শুরু করেছে। কিন্তু ফিরতি পথেও সৃষ্টি হচ্ছে দুর্ভোগ। ফলে আবার কর্মস্থলে ফেরার সময়ও মানুষ পড়ছে দুর্ভোগে।

আজ সকাল থেকে ১২টি ফেরি চলাচল করছে ধারণক্ষমতার তুলনায় অর্ধেক গাড়ি নিয়ে। নাব্যতা সংকটের কারণে রো রো ফেরিগুলো বন্ধ আছে। ঘাট এলাকায় আট শতাধিক গাড়ি পারের অপেক্ষায় আছে। এ ছাড়া পণ্যবাহী ট্রাকগুলো ঘাটে এসে ফিরে যাচ্ছে।