শহিদুল আলমের শ্বাসকষ্ট, চোয়াল ও মাড়িতে ব্যথা, চিকিৎসা দিতে আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

 

   তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে করা মামলায় কারাগারে থাকা আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের স্বতন্ত্র মেডিকেল পরীক্ষা ও তাঁকে চিকিৎসাসেবা দেওয়ার আবেদন জানিয়ে কারা কর্তৃপক্ষ বরাবরে আবেদন করা হয়েছে। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপার বরাবরে শুক্রবার ই-মেইলে ওই আবেদন পাঠানো হয় বলে জানিয়েছেন শহিদুল আলমের আইনজীবী সারা হোসেন।

 

শনিবার তিনি জানান,ইতিমধ্যে শহিদুল আলমের পরিবারের সদস্যরা কারাগারে তাঁর সঙ্গে গিয়ে দেখা করেন। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, শহিদুল আলমের মুখে ব্যথা থাকায় তিনি ঠিকমতো খেতে পারছেন না, শ্বাসকষ্ট ও চোখের সমস্যায় ভুগছেন। এ অবস্থায় শহিদুল আলমকে চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য ঈদের দিন (২২ আগস্ট) কারা কর্তৃপক্ষ বরাবরে ই-মেইলে আবেদন পাঠানো হয়। সেদিন সন্ধ্যায় কারা হাসপাতালে তাঁকে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়। এরপরও অবস্থার পরিবর্তন না হওয়ায় প্রথম দফায় নেওয়া পদক্ষেপের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে গতকাল কেরানীগঞ্জে অবস্থিত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার বরাবরে দ্বিতীয় দফায় ই-মেইলে আবেদন পাঠানো হয়। এতে শহিদুল আলমের স্বতন্ত্র স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও তাঁকে চিকিৎসাসেবা দিতে আবেদন জানানো হয়েছে। কেননা হেফাজতে নেওয়ার আগে শহিদুল আলমের এসব সমস্যা ছিল না।

 

এর আগে গত শুক্রবার এক বিবৃতিতে শহিদুলের স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ ও সহকর্মী সায়দিয়া গুলরুখ জরুরি ভিত্তিতে তাঁকে কারাগার থেকে হাসপাতালে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। তাঁরা বলেছেন, ঈদের দিন তাঁরা কেরানীগঞ্জের কারাগারে শহিদুলের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। তখন শহিদুল তাঁদের বলেছেন তিনি শ্বাসকষ্ট, চোয়াল ও মাড়িতে ব্যথা ও চোখের সমস্যায় ভুগছেন। অথচ পুলিশ বাড়ি থেকে তুলে নেওয়ার আগে তাঁর এ রকম স্বাস্থ্য সমস্যা ছিল না।

 

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে ‘উসকানিমূলক মিথ্যা’ প্রচারের অভিযোগে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় ৬ আগস্ট শহিদুল আলমকে সাত দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। ৫ আগস্ট রাতে ধানমন্ডির বাসা থেকে শহিদুল আলমকে তুলে নেয় ডিবি।