বিশ্ব পানি দিবস আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

পানির জন্য প্রকৃতি’ প্রতিপাদ্য নিয়ে বিশ্ব পানি দিবস পালিত হচ্ছে আজ। দিবসটি উপলক্ষে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়সহ সরকারি বিভিন্ন সংস্থা ও বিভাগ এবং বেসরকারি বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীও দিবস উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ নিরাপদ পানির সংকট নিরসনে প্রকৃতিনির্ভর পানি ব্যবস্থাপনার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন। তিনি বলেন, ‘পানিই পৃথিবীকে বাঁচিয়ে রেখেছে, বাসযোগ্য রেখেছে। পানি ছাড়া প্রকৃতি, জীবন ও সভ্যতা অচল। কিন্তু নিরাপদ পানির প্রাপ্যতা ও সুষ্ঠু ব্যবহারের অভাবে প্রকৃতি তার স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য হারাচ্ছে এবং জীববৈচিত্র্যও হুমকির মুখে পড়ছে। নিরাপদ পানির অভাবে মানুষের স্বাস্থ্য ও সামগ্রিক জীবনযাত্রার ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। এ সমস্যা নিরসনে দরকার প্রকৃতিনির্ভর পানি ব্যবস্থাপনা।’

তিনি বলেন, ‘দেশের পানি সম্পদের সার্বিক উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনায় পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়কে টেকসই প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও ব্যবহার করতে হবে। দেশের জনগণকেও এব্যাপারে সচেতন করে তুলতে হবে। এ সম্পর্কিত সব কর্মকাণ্ডে জনগণের সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। দিবসটি পালনের মধ্যদিয়ে টেকসই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে একদিকে যেমন সহায়ক ভূমিকা পালন করবে, অন্যদিকে প্রকৃতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান পানির গুরুত্ব সম্পর্কে সবাই সম্যক ধারণা লাভ করতে সক্ষম হবেন।’

বিশ্ব পানি দিবস উপলক্ষে দেওয়া বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘পানি দিবস পালনের মাধ্যমে পানির সুষ্ঠু ব্যবহার, অপচয় ও দূষণরোধের বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধি পাবে।’ তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার পানি সম্পদ উন্নয়নে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে, যা ২০৩০ সালের মধ্যে বাস্তবায়নের মাধ্যমে সবার জন্য নিরাপদ পানির নিশ্চয়তা তৈরি হবে। প্রাকৃতিক পরিবেশ রক্ষা ও পানি দূষণ কমাতেও সক্ষম হবে।’

তিনি বলেন, ‘উন্নয়ন কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য আমাদের নির্ভর করতে হয় প্রকৃতি, পরিবেশ ও পানির ওপর। পরিবেশ ও প্রকৃতির বিঘ্ন না ঘটিয়ে আমাদের টেকসই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। জনগণের চাহিদা পূরণে পানির আহরণ, উন্নয়ন ও সুষ্ঠু ব্যবহারের জন্য লাগসই পরিকল্পনা আবশ্যক।’ সূত্র: বাসস।