আমি অনেক জায়গায় তিরস্কৃত হয়েছি : ফেরদৌস আরা

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৪২তম প্রয়াণ দিবস আজ  সোমবার ২৭ আগস্ট। এদিনে নজরুল সংগীতের জনপ্রিয় শিল্পী ফেরদৌস আরা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নজরুল সংগীত পরিবেশন করবেন। 

নজরুলের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে আপনার গানের ব্যস্ততা-

আমার সুরসপ্তক স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে আজ সোমবার ভোরবেলা চলে গিয়েছিলাম আমার প্রিয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের মাজারে। সেখানে আমরা তার জন্য দোয়া করেছি এবং তাকে স্মরণে আমরা নিজেরাই গান গেয়েছি। বিকেল ৪টায় জাতীয় জাদুঘরে নজরুল ইনস্টিটিউট আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করব।

কোনো টেলিভিশন অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করবেন কি?

অনেকগুলো অনুষ্ঠানে গান গাইবো। বিটিভিতে সন্ধ্যা ৭টা ১০ মিনিটে গান পরিবেশন করবো। চ্যানেল ডিবিসি নিউজে আমার বায়োগ্রাফি নিয়ে একটি অনুষ্ঠান প্রচার হয়ে গেছে।এছাড়া চ্যানেলে আইতে  ‘দূর গগণে প্রিয়’ নামে একটি অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন ছাড়াও আরও কিছু চ্যানেলে রেকর্ডকৃত কিছু অনুষ্ঠানে নজরুলের গান পরিবেশন করেছি।

জন্ম বা প্রয়াণ দিবস এলেই নজরুলকে ঘটা করে স্মরণ করা হয়। সারা বছর নজরুল স্মরণে তেমন একটা আয়োজন চোখে পড়ে না। এ বিষয়ে আপনার অভিমত?

জাতীয় কবি বলছি, অথচ তাকে মূল্যায়ন করছি না। আমাদের মতো ছোট মানুষরা মূল্যায়ন কি করব, কিন্তু তাকে যে চর্চা করা, তাকে যে হৃদয়ে লালন করছি তার তো বহিঃপ্রকাশ করতে হবে। তাই তাকে নিয়ে বেশি বেশি কাজ করা উচিত সরকারি বা বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে। গত কয়েক বছরে নজরুলকে নিয়ে তেমন একটা আয়োজন দেখিনি। এই বছর দেখলাম একটু অনুষ্ঠান হচ্ছে। নজরুলের মাজারে অনেকেই এসেছেন। তবে, নজরুলকে নিয়ে কাজ যতোটুকু হওয়া উচিত ততোটুকু হচ্ছে না। এই সময়ে এসে নজরুলকে নিয়ে নতুন প্রজন্ম বেশ আগ্রহী। কিন্তু নতুন প্রজন্মকে জায়গা দিতে হবে। এটা আমাদের সবার দায়িত্ব।

এ প্রজন্মের যারা নজরুলসংগীত চর্চা করছেন তাদের সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন কেমন?

নতুন প্রজন্ম খুবই ভালো করছে। তাদের কণ্ঠস্বরও বেশ সমৃদ্ধ। কিন্তু তাদের যতোটা সুন্দর কণ্ঠ আছে তারা ততোটা ব্যয় করে না।গানের জন্য তাদের আরও সময় দিতে হবে। আমি মনে করি আমাদের নতুন প্রজন্ম কোনো অংশেই অন্যান্য দেশ থেকে পিছিয়ে নেই। নজরুল সংগীতে আমাদের দেশের ছেলে মেয়েরা ভারতের চেয়ে অনেক এগিয়ে আছে। নজরুল নিয়ে আমাদের দেশে যা হচ্ছে সেটা কলকাতাতেও হয় না। কেউ যদি নজরুলের ওপর পিএইচডি করতে চায় বা নজরুলের ওপরে উচ্চশিক্ষা নিতে চায় তাহলে তাদের বাংলাদেশে আসা উচিত।

তারপরও নতুন নজরুল সংগীতশিল্পী তেমন একটা তৈরি হচ্ছে না কেন?

আমার স্কুল বলেন বা আমি নজরুল ইন্সস্টিটিউটের প্রশিক্ষক অথবা বিভিন্ন জায়গায় নজরুলকে নিয়ে যখন কাজ করি তখন দেখি প্রচুর ভালো ভালো ছেলে মেয়ে আছে। যারা তৈরিও হচ্ছে। এটা বলতে পারি তাদের স্কোপ তৈরি হচ্ছে না। তাদের জায়গা দিতে হবে। আমরা তাদের জায়গা দিচ্ছি না। আমরা যারা পরিচিত আছি সবাই তাদেরকেই ডাকে। মাঝে মাঝে নতুন নতুন শিল্পীদেরও ডাকা উচিত। আমি কিন্তু নিজে না গেয়ে অনেক সময় আমার ছাত্র-ছাত্রীদের গান গাওয়ার সুযোগে করে দেই। এজন্য আমি অনেক জায়গায় তিরস্কৃত হয়েছি। আমি কেন নতুন প্রজন্মকে গাইতে দিলাম এজন্য অনেকেই আমাকে তিরস্কার করেছে। এসব জিনিস খুবই নিন্দনীয়। আমি মনে করি আমরা যদি নতুন প্রজন্মকে এখন সুযোগ করে না দেই তাহলে আর কবে দেব।

আপনার একক কণ্ঠে হাজার গানের অষ্টম খন্ড প্রকাশিত হয়েছে। নবম খন্ড কবে নাগাদ প্রকাশ করার ইচ্ছে আছে?

ইতোমধ্যে নবম খন্ডের কাজ শেষ করেছি। শিগগিরই এটি প্রকাশের ইচ্ছে আছে।