‘শুটিং ম্পটে আমাকে সে ম্যাডাম বলে ডাকা শুরু করে’

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

 

একজন মানুষের ভালো ব্যবহারের কারণেই তাকে আজীবন মনে রাখতে হয়। সালমান শাহর ব্যবহার প্রত্যেককে মুগ্ধ করতো। সেই মুগ্ধতা এখনো আমার কাটেনি। প্রয়াত এই অভিনেতা সম্পর্কে এভাবেই বললেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী তানভিন সুইটি। সালমান শাহর বিপরীতে ‘স্বপ্নের পৃথিবী’ শিরোনামের একটি নাটকে জুটি বেঁধে ছোট পর্দায় অভিনয় শুরু করেন এই অভিনেত্রী। ১৯৯৫ সালের দিকে এই নাটকের শুটিং হয় বলে জানান তিনি।

প্রথম নাটকের শুটিংয়ের সেই সময় প্রসঙ্গে সুইটি বলেন, সালমান শাহর সঙ্গে আমার আগে থেকে পরিচয় ছিল। তবে সেই সময়ে চারদিকে তার তারকাখ্যাতি। তবু শুটিং ম্পটে আমাকে সে ম্যাডাম বলে ডাকা শুরু করে। এটির কারণ জানতে চাইলে সে মজা করে বলে ফিল্মের নায়িকাদের ম্যাডাম বলে ডাকি। সত্যি বলতে, সে সময়ে সে এত বড় তারকা হওয়ার পরেও আমার সঙ্গে স্বাচ্ছন্দ্যে অভিনয় করে। এমনকি তার স্ত্রী সামিরাকে বলে দেয় আমাকে সহযোগিতা করার জন্য। সামিরাও বেশ হেল্পফুল ছিল। তার অকাল মৃত্যুতে বেশ মর্মাহত  হয়েছি। আগামী ৬ই সেপ্টেম্বর সালমান শাহর মৃত্যুবার্ষিকী। আর সে কারণেই তাকে স্মরণ করতে গিয়ে কথাগুলো বললেন সুইটি। সম্প্রতি সরকারের উন্নয়ন মূলক একটি প্রজেক্টে কাজ করেছেন এই অভিনেত্রী। সরকারি এই প্রজেক্টেটি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পদ্মা ভাঙ্গনের ফলে অনেকে ঘর-বাড়ি হারিয়েছে। সরকার এই সব মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্র তৈরি করে দিয়েছে। মৎস চাষ, গরুর খামারসহ বিভিন্ন প্রকল্পের জন্য সরকার তাদেরকে ঋন দিয়েছে। সরকারের উন্নয়ন মূলক বিষয় নিয়ে এই প্রজেক্ট। আমি মনে করি, সরকারের বাইরে আমাদের নিজেদের উন্নয়ন মূলক কাজে এগিয়ে আসা প্রয়োজন। একটি দেশকে উন্নত করা সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এদিকে এই অভিনেত্রী বর্তমানে দুটি ধারাবাহিকে অভিনয় করছেন। ধারাবাহিক দুটি হলো দুরন্ত টিভির ‘ব-তে বন্ধু’এবং অন্যটি অনিমেষ আইচের ‘দ্য গুড দ্য বেড দ্য আগলি’। এই সময়ে সুইটির অভিনয়ে ব্যস্ততা কেমন?  এই প্রশ্নের উত্তরে তার ভাষ্য, আমি এখন আগের মতো অভিনয় করি না। ক্যারিয়ারে এই সময়ে আমাকে অনেক কাজ করতে হবে এমনটাও ভাবি না। গল্প ও চরিত্র পছন্দ হলেই এখন অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নিই। ‘ব-তে বন্ধু’ ধারাবাহিকটি শিশুতোষ। এটির গল্প এক কথায় চমৎকার। অপর ধারাবাহিকটির গল্পও ভালো লাগায় অভিনয় করছি। ক্যারিয়ারে এ যাবৎ ছোট পর্দার বাইরে এই অভিনেত্রীকে একটি চলচ্চিত্রে দেখা গেছে। আবু সাঈদের ‘বাঁশি’ চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেন। পরবর্তিতে আর কোনো চলচ্চিত্রে অভিনয় না করার কারণ কি? এই বিষয়ে তিনি বলেন, ছোট পর্দার কাজ নিয়ে সেই সময় ব্যস্ত ছিলাম আমি। এছাড়া আমার মনের মতো চলচ্চিত্রের গল্প ও চরিত্র পাইনি বলেও এ মাধ্যটিতে আর কাজ করা হয়নি। শোবিজের কাজের পাশাপাশি এই অভিনেত্রী বিভিন্ন সামাজিক কর্মকা-ের সঙ্গেও যুক্ত রয়েছেন। তিনি  ইয়ূথ বাংলা কালচারাল ফোরামের জয়েন্ট সেক্রেটারির দায়িত্বও পালন করছেন। সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে অংশ নেন বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি বলেন,  ইয়ূথ বাংলা কালচারাল ফোরাম একটি সামাজিক সংগঠন। এখান থেকে আমরা অটিজম শিশুদের জন্য করণীয় বিষয়ে বিভিন্ন সেমিনার আয়োজন করে থাকি। লোকজনের মধ্যে সামাজিক সচেতনা বৃদ্ধিও জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনা করছি। আমাকে এখন এই সংগঠনের কার্যক্রম নিয়েই বেশি ব্যস্ত থাকতে হয়। দেশ ও সমাজের প্রতি আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব আছে। সেখান থেকে আমাদের সকলের দেশের জন্য কাজ করা উচিৎ। গেল ৩০শে আগষ্ট ছিল এই অভিনেত্রীর জন্মদিন। ঈদের পর পরেই জন্মদিন হওয়ায় গেল কয়েকটা দিন খুব ব্যস্ত কাটাতে হয়েছে বলে জানান তিনি।