২০৪১ সালে ৬০ হাজার মে. বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

বর্তমান সরকারের আমলে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। ’

আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সপ্তাহ এবং জ্বালানি মেলার উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বিদ্যুতের গ্রাহক বর্তমানে তিন কোটি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘বিদ্যুতে প্রচুর ভর্তুকি দিতে হচ্ছে। তাই বিদ্যুতের অপচয় করা যাবে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন,  ‘বর্তমানে প্রতি কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে গড়ে খরচ হচ্ছে ৬ টাকা ২০ পয়সা করে, তবে বিক্রি হচ্ছে ৪ টাকা ৮২ পয়সা করে। দেশের ৯০ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সেবা পাচ্ছেন। সবাইকে এ সেবার আওতায় আনতে ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে, ভবিষ্যতে এ সুযোগ আর থাকবে না।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রতি কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের খরচ ৬ টাকা ২৫ পয়সা। উৎপাদন খরচ আমরা নিচ্ছি না। সরবরাহ করা হচ্ছে ৪ টাকা ৮২ পয়সায়। আমরা বিদ্যুতে ভর্তুকি দিচ্ছি। অনন্তকাল হয়তো এই ভর্তুকি দেওয়া হবে না। তাই বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে।’

বিদ্যুত খাতের সরকারের সফলতার কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে সামগ্রিক পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। আমরা সারা দেশে ৪৩ লাখ সোলার দিয়েছি। আরও দেওয়া হবে। আমরা সিস্টেম লস কমিয়ে এনেছি। বর্তমানে সিস্টেম লস ১১ দশমিক ৪০ শতাংশ। বিদ্যুৎ প্রাপ্তি প্রতি ঘণ্টায় ৪৬৪ কিলোওয়াট।’

বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে পার্শ্ববর্তী পশ্চিমবঙ্গ থেকে এক হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ভারতের মাধ্যমে নেপাল-ভুটান থেকেও বিদ্যুৎ আনা হবে।’