স্কুল ব্যাংকিং: নীলফামারীতে সঞ্চয় আড়াই কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

নীলফামারী জেলার ১৩টি ব্যাংকে স্কুল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে আড়াই কোটি টাকা সঞ্চয় করেছে শিক্ষার্থীরা।

২০১০ সাল থেকে ব্যাংকগুলোতে তিন হাজার পাঁচশ শিক্ষার্থী তাদের সঞ্চয়ী হিসাবে টাকা জমা করেছে।

মঙ্গলবার জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত স্কুল ব্যাংকিং ও আর্থিক শিক্ষা মেলায় এ তথ্য  জানান স্কুল ব্যাংকিং ‘তত্বাবধায়ক ব্যাংক’  জনতা ব্যাংক নীলফামারী শাখা ব্যবস্থাপক জিয়াউর রহমান।

জেলার ১৩টি ব্যাংকের উদ্যোগে যৌথভাবে আয়োজিত ওই মেলার উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শাহিনুর আলম।

অনুষ্ঠানে জিয়াউর রহমান বলেন, বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মিতব্যায়ী হিসেবে গড়ে তুলতে, অর্থ ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বৃদ্ধি করতে এবং সঞ্চয় করার মনোভাব গড়ে তুলতে বর্তমান সরকার বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে ২০১০ সাল থেকে সারাদেশে শিক্ষার্থীদের জন্য স্কুল ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু করে।

“সারাদেশের ৪০টি ব্যাংকে এ পর্যন্ত স্কুল ব্যাংকিং কার্যক্রমে শিক্ষার্থীরা এক হাজার ৩৬৯ কোটি টাকা সঞ্চয় করেছে।”

 আর নীলফামারী জেলার ১৩টি ব্যাংকে ২০১০ সাল থেকে ২০১৮ সালের সেপ্টম্বর মাস পর্যন্ত তিন হাজার পাঁচশ স্কুল শিক্ষার্থী আড়াই কোটি টাকা সঞ্চয় করেছে, বলেন তিনি।
জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা দেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম, ইসলামী ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ ভাইস প্রেসিডেণ্ট রুহুল আমীন, জনতা ব্যাংকের রংপুর এরিয়া কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক মিজানুর রহমান সরকার, পূবালী ব্যাংকের রংপুর জোনের উপ-মহাব্যবস্থাপক কামরুজ্জামান, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের নীলফামারী জোনাল কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক আমিনুল হক, ব্র্যাক ব্যাংক নীলফামারী শাখার ব্যবস্থাপক এস এম জাকির হোসেন, অগ্রণী ব্যাংক নীলফামারী শাখার ব্যবস্থাপক আরিফুল ইসলাম, নীলফামারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র সৌমিক দাস প্রমুখ।

মেলায় আগত নতুন প্রায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থীর সঞ্চয় হিসাব খুলে দিয়ে তাদের এই কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করা হয়।