কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’র পর্দা উন্মোচন

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হল ২৪ তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় কলকাতার নেতাজী ইন্ডোর স্টেডিয়ামে প্রদীপ জ্বালিয়ে উৎসবের সূচনা করেন বলিউড অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন। 

এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা শাহরুখ খান, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, অভিনেত্রী জয়া বচ্চন, ওয়াহিদা রহমান, নন্দিতা দাস, সাবিত্রি চ্যাটার্জি, মাধবী মুখার্জি, ঋতুর্পা সেনগুপ্ত, কোয়েল মল্লিক, অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, রঞ্জিত মল্লিক, প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি, বিশ্বজিৎ চ্যাটার্জি, পরিচালক মহেশ ভাট, গৌতম ঘোষ, ইরানের চলচ্চিত্র পরিচালক মাজিদ মাজিদি, অষ্ট্রেলিয়ার ছবি নির্মাতা সিমন বেকার, ফিলিপ নয়েস, জিলা বিলকক সহ বিশ্ব চলচ্চিত্রের প্রসিদ্ধ তারকারা। 

এককথায় এদিনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছিল চাঁদের হাট। অনুষ্ঠান শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে। তাতে অংশ নেন রশিদ খান, পন্ডিত তেজেন্দ্র নারায়ন মজুমদার, বিক্রম ঘোষ, ঊষা উত্থুপ, রূপঙ্কর বাগচি, লোপামুদ্রা মিত্র-রা। অনুষ্ঠানে মঞ্চে উপস্থিত প্রত্যেক অতিথিদের সম্মাননা জানানো হয়।
 
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ফাঁকে শাহরুখ অভিনীত ‘জিরো’ ছবিটির ট্রেলর প্রদর্শিত হয়। এই ছবির ট্রেলর প্রদর্শনের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন শাহরুখ। তার সেই অনুরোধ মেনে সেই ছবিটির এক ঝলক দেখানো হয়। পরে বক্তব্য রাখতে গিয়ে জাতীয় পুরস্কার না পাওয়ার অনুশোচনা প্রকাশ করেন শাহরুখ খান। এমনকি কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে তার কোন ছবি দেখানো হয় নি বলেও কিছুটা হতাশা ব্যক্ত করেন বাদশা।
 
সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় তার বক্তব্যে বলেন ‘প্রতিবছরই এই দিনটা ফিরে আসে এবং চলচ্চিত্র শিল্পের সাথে জড়িত আমাদের মতো মানুষদের মনে একটা তরঙ্গ এসে পড়ে।’ 

অমিতাভ বচ্চন বাংলা ও ভারতীয় সিনেমার চালচিত্র ব্যখ্যা করার পাশাপাশি চলচ্চিত্রে নেপথ্য নায়কদের স্মরণ করেন। তার অভিমত ‘ভাল ছবি তৈরি করলেই হবে না, তা সংরক্ষণও করতে হবে। তা না করলে অনেক ভাল ছবি হারিয়ে যাবে। সিনেমার কোন সীমারেখা হয় না।’
 
এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য গত কয়েকবছর ধরে তাকে দাওয়াত দেওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে বারবার বলেছি যে ডাকবেন না, আর নতুন কিছু বলার বাকী নেই। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী কথাই শোনেন না। তাই আবার এসেছি। এই কথটা এর আগে ইংরেজিতে বলেছি, কিন্তু এবার বাংলায় বলছি। 

এসময় মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্যেশ্য করে তিনি বলেন ‘মমতা দি, আশা করি এবার বুঝবেন..বুঝবেন না..আর পারবো না মা রক্ষা করুন।’ যদিও মুখ্যমন্ত্রী তার এই অনুরোধ ফিরিয়ে দিয়ে বলেন আগামী বছর উৎসবের রজতজয়ন্তী বর্ষ। তাই আপনাদের উপস্থিতি আরও বেশি কাম্য। আপনারা না থাকলে আমরা এভাবে অনুষ্ঠানকে এগিয়ে নিতে যেতে পারবো না।’
  
এবারের উৎসবের ফোকাস কান্ট্রি অস্ট্রেলিয়া। বিশেষ ফোকাস কান্ট্রি তিউনিশিয়া। আট দিনের এই উৎসবে ৭০ টি দেশের ১৭১ টি পূর্ণ দৈর্ঘ্য ছবি, ৯৬ টি স্বল্প দৈর্ঘ্য ও ৫৪ টি তথ্যচিত্র দেখানো হবে। নন্দন, শিশির মঞ্চ, রবীন্দ্রসদনরে পাশাপাশি কলকাতা, হাওড়া ও দমদমের ১৬ টি পেক্ষাগৃহে দেখানো হবে উৎসবের ছবি।