ব্যাংক থেকে সরকারের ঋণ ৯৩ হাজার কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

অথর্বছরের প্রথম ছয় মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর) দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে সরকারের ঋণ গ্রহণ বেড়েছে ৫ হাজার ১০৯ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। আলোচ্য সময়ে সরকারের নিট ঋণের পরিমাণ ৯৩ হাজার ৩৬৭ কোটি ৪৩ লাখ টাকায় দঁাড়িয়েছে। কমর্সংস্থান সৃষ্টি এবং মেগা উন্নয়ন প্রকল্পগুলো হাতে নেয়ায় এই ঋণের পরিমাণ সামনে আরও বাড়বে বলে মনে করছেন ব্যাংক খাত সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, মোট ঋণের মধ্যে উন্নয়ন বাবদ সরকার ঋণ নিয়েছে ১৪ হাজার ৮৯৫ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। এ ছাড়া বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর কাছ থেকেই সরকার ঋণ নিয়েছে ৬৮ হাজার ৭৫৪ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। তবে বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি খুব একটা বাড়েনি। যার কারণে সরকারি ঋণ বৃদ্ধিতে মূল্যস্ফিতির ওপর কোনো নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ঊধ্বর্তন কমর্কতার্রা জানিয়েছেন, দেশের অব্যাহত উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন ও বেতনভাতা মেটাতে বাড়তি ঋণের চাপ তৈরি হচ্ছে সরকারের ওপর। ফলে এ বছর ব্যাংক খাত থেকে ঋণ গ্রহণ বাড়ছে। রাজস্ব আদায়ে ঘাটতি থাকার কারণে এই ঋণ বাড়ছে বলে মনে করছেন তারা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সূত্রমতে, আলোচ্য সময়ে ব্যাংক খাত থেকে নেয়া মোট ঋণের পরিমাণ দঁাড়িয়েছে ৯৩ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা। ২০১৭-১৮ অথর্বছরের শেষে যার পরিমাণ ছিল ৮৮ হাজার ২৫৮ কোটি টাকা। সুতরাং ছয় মাসের ব্যবধানে সরকারের নেয়া ঋণের পরিমাণ বেড়েছে ৫ হাজার ১১০ কোটি টাকা। বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে সরকারের ঋণ নেয়ার পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। মোট ঋণের মধ্যে বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে সরকারের ঋণ ৬৮ হাজার ৭৫৪ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। গত বছরের একই সময়ে বেসরকারি ব্যাংকগুলো থেকে সরকারের ঋণ ছিল ৬৭ হাজার ৫৪২ কোটি ৫২ লাখ টাকা। অথার্ৎ এক বছরের ব্যবধান ১ হাজার ২১২ কোটি ১২ লাখ টাকা ঋণ বেড়েছে।

বিদায়ী ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নিবার্চন ও ৩১ ডিসেম্বর ব্যাংক হলিডে থাকায় ১ জানুয়ারি ব্যাংক লেনদেন শুরু হয়। ওই দিন থেকে ৩ জানুয়ারি পযর্ন্ত তিন দিনেই ব্যাংক থেকে সরকারের ঋণ বেড়েছে ১ হাজার ২৬২ কোটি টাকা। বিদায়ী ২০১৮ সালে সবের্শষ ব্যাংক লেনদেন হয় গত ২৭ ডিসেম্বর, সেই দিন পযর্ন্ত সরকারের নিট ঋণ ছিল ৯২ হাজার ১০৫ কোটি টাকা।

সরকারি খাতের ঋণ বৃদ্ধি পেলেও বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবৃদ্ধি আশাব্যঞ্জক নয়। বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, গত নভেম্বরে বেসরকারি খাতের ঋণের প্রবৃদ্ধি গত ৫ বছরের মধ্যে সবির্নম্ন পযাের্য় নেমে এসেছে। ওই মাসে বেসরকারি খাতের ঋণের প্রবৃদ্ধি ছিল ১৪ দশমিক ০১ শতাংশ। 

অন্যদিকে প্রত্যাশা অনুযায়ী রাজস্ব আদায় হচ্ছে না সরকারের। জাতীয় রাজস্ব বোডর্ (এনবিআর) সূত্রে জানা যায়, চলতি অথর্বছরের জুলাই-নভেম্বর সময়ে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ২৩ হাজার কোটি টাকা কম ছিল রাজস্ব আদায়। ডিসেম্বরের তথ্য আরও হতাশাজনক। জুলাই-ডিসেম্বর পযর্ন্ত ছয় মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে রাজস্ব আদায়ে ২৯ হাজার কোটি টাকা পিছিয়ে আছে এনবিআর।

তথ্য বিশ্লেষণে আরও দেখা যায়, ব্যাংক ব্যবস্থায় গত ছয় মাসে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে সরকারের ঋণ বেড়েছে ৪ হাজার ১৪৩ কোটি টাকা। এতে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে সরকারের ঋণ দঁাড়িয়েছে ৬৮ হাজার ৭৫৫ কোটি টাকা। আর বাংলাদেশ ব্যাংকে ঋণ বেড়েছে ৯৬৭ কোটি টাকা। এতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে সরকারের ঋণ বেড়ে ২৪ হাজার ৬১৩ কোটি টাকায় দঁাড়িয়েছে।