অতিরিক্ত কাজে ভাতা দাবি পুলিশের

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

আট ঘণ্টার বেশির কাজের বেশি হলে ওভারটাইম ভাতা দাবি করছেন পুলিশ কর্মকর্তারা।

পুলিশ সপ্তাহের দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এই দাবি করেন তারা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মিলনায়তনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে পুলিশের পুলিশ সুপার (এসপি) ও তদূর্ধ্ব কর্মকর্তারা এই সভায় বসেন।

সভায় কর্মকর্তারা পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি-দাওয়া তুলে ধরেন। বৈঠকের পর বিভিন্ন কর্মকর্তা তা সাংবাদিকদের জানান 

মন্ত্রীর কাছে পুলিশের চাওয়া

>> আট ঘণ্টার বেশি দায়িত্ব পালনে ওভারটাইম দেওয়ার ব্যবস্থা করা।

>> ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরকে পুলিশের অধীনে আনা।

>> রোহিঙ্গা শিবিরে দায়িত্ব পালনকারী সব পুলিশ সদস্যদের আলাদা ভাতা দেওয়া।

>> মাদক উদ্ধারে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের মতো পুলিশকেও আনুপাতিক হারে অর্থ দেওয়ার ব্যবস্থা করা।

>> অবৈধভাবে বাংলাদেশে বসবাসরত বিদেশিদের দেশে পাঠানোর জন্য পৃথক ‘ডেপুটেশন সেন্টার’ এবং তাদের বিদেশে পাঠানোর জন্য অর্থ বরাদ্দ দেওয়া।

>> পুলিশ বাহিনীকে হেলিকপ্টার দেওয়া এবং হেলিকপ্টার স্কোয়াড গঠন করা।

>> বিদেশের বিভিন্ন মিশনে (রাষ্ট্রদূত অফিসে) পুলিশ সদস্যদের পদায়ন কর।

>> মাদক মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির ব্যবস্থা করা।

>> এয়ারপোর্ট এপিবিএনের ৪৬০ জনবলকে দ্বিগুণ করা।

>> ডিও লেটারের মাধ্যমে থানার ওসি নিয়োগ না করা।

পুলিশ কর্মকর্তাদের বক্তব্য শোনার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আমার বাসায় ঢোকার সময় দেখবেন লেখা আছে ‘বদলির তদবিরের জন্য আসবেন না’। আমি কিন্তু এই কর্মটি থেকে বিরত থাকি এবং সহজে কারও কাছে বলি না যে তাকে ওসি পদায়ন করে দেন।

“আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে যারা এ কাজটি করেন। সাধারণত পুলিশ সুপার ও ডিআইজিরাই এ কাজটি (ওসি নিয়োগ) করেন। আপনারা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে যাকে দিয়ে  ভালো হবে, তাকে দেবেন।”

মাদকবিরোধী অভিযানের প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, “আপনারা (পুলিশ) কষ্ট করে ধরেন। সেজন্য আপনাদের পুরস্কার বা অন্যভাবে কিছু করা যায় কি না, তা সচিব মহোদয় ইঙ্গিত করে গেছেন।”

অবৈধভাবে আসা বিদেশিদের বিষয়ে শিগগিরই ‘একটি ব্যবস্থা’ নেওয়ার আশ্বাস দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

৩৫ লাখ মামলার জট নিষ্পত্তির জন্য আইনমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানান তিনি।

পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “আপনারা যেসব দাবি জানিয়েছেন, তা ছোট ছোট দাবি। এসব আইজি মহোদয়ই শেষ করতে পারবেন। আপনাদের দাবি সবই যৌক্তিক এবং এগুলো সবই সমাধান হবে ইনশাল্লাহ।”