অভিযোগ তদন্তে স্বতন্ত্র কর্তৃপক্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

সরকারি কর্মচারীদের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া বিভাগীয় মামলা নিরপেক্ষ তদন্তে একটি স্বতন্ত্র কর্তৃপক্ষ গঠনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বর্তমানে এসব মামলার তদন্ত করেন সংশ্নিষ্ট বিভাগেরই কর্মকর্তারা। এতে নিরপেক্ষ তদন্ত ও বিচার কোনোটিই সম্ভব হয় না। এ অবস্থায় মামলাগুলোর তদন্ত কার্যক্রম সংশ্নিষ্ট মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও দপ্তরের মাধ্যমে পরিচালনার বর্তমান পদ্ধতির পরিবর্তে সম্পূর্ণ পৃথক কর্তৃপক্ষের অধীনে পরিচালনা করা হবে। এরইমধ্যে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ কর্তৃপক্ষ গঠনের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ শুরু করেছে। শিগগিরই এর কাঠামো চূড়ান্ত করা হবে। সরকারি একাধিক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতার পর মন্ত্রিসভায় ব্যাপক চমক দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবারের মন্ত্রিসভায় বেশিরভাগ স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতারা স্থান পেয়েছেন। তাদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে কাজ করতে প্রশাসনেও শুদ্ধি অভিযানের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এরইমধ্যে প্রধানমন্ত্রী বড় মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো পরিদর্শন শুরু করেছেন। সম্প্রতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে গিয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। এ অবস্থায় দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়ার অংশ হিসেবে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগের নিরপেক্ষ তদন্ত করে শাস্তির ব্যবস্থা করতে আলাদা কর্তৃপক্ষ গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর আগে গত বছর সচিব সভার আলোচনায়ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্ত ও বিচারের আলাদা কর্তৃপক্ষ গঠনের বিষয়টি স্থান পায়। এটি গঠনে সংশ্নিষ্টদের নির্দেশও দেওয়া হয়। কিন্তু পরে অজানা কারণে এটি আবার অন্ধকারে চলে যায়। দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স ঘোষণায় এ বিষয়টি আবার সামনে চলে এসেছে। 

সংশ্নিষ্টরা বলছেন, আলাদা কর্তৃপক্ষ হলে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে বিচার সম্পন্ন হবে। এতে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দুর্নীতি ও অসদাচরণে নিরুৎসাহিত হবেন। কারণ তাদের মধ্যে একধরনের বিচারের ভয় ঢুকবে। আর তাদের কাছ থেকে প্রকৃত সেবা পাওয়া যাবে।