ভারতীয় পাইলটের মুক্তি চান ফাতিমা ভুট্টো

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করে হামলা চালানোর সময় পাকিস্তানের হাতে আটক পাইলটের মুক্তি চেয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোর নাতনী লেখক ফাতিমা ভুট্টো।


ফাতিমা ভুট্টো বলেন, শান্তি, মানবাধিকার ও দেশের মর্যাদা রক্ষায় আমি ও আমার মতো অনেক পাকিস্তানি ইমরান খানের সরকারের কাছে ভারতীয় পাইলটের মুক্তি দাবি করছি।

তিনি বলেন, আমরা যুদ্ধের মধ্যেই সমগ্র জীবন কাটিয়েছি। পাকিস্তান কিংবা ভারতের আরও সৈন্য নিহত হোক; তা আর চাই না।

নিউ ইয়র্ক টাইমসে ফাতিমা ভুট্টো লিখেছেন, অধিকারের কথা বলার জন্য আমার প্রজন্ম যুদ্ধ করছে। শান্তির জন্য আমরা কথা বলতে ভয় পাই না।

এদিকে নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করে হামলা চালানোর সময় ভূপাতিত হওয়া ভারতীয় বিমানের পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে নিয়ে বুধবার দ্বিতীয়বারের মতো ভিডিও প্রকাশ করেছে পাকিস্তান।

এদিন প্রথমবার প্রকাশিত ভিডিওতে অভিনন্দনকে হাত বাঁধা ও রক্তাক্ত অবস্থায় দেখা গেলেও দ্বিতীয়বারের ভিডিওতে তাকে খুব স্বাভাবিক দেখা গেছে।

পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) প্রকাশ করা দ্বিতীয় ভিডিওতে ভারতীয় পাইলটকে চা পান করতে দেখা গেছে। এসময় তাকে বলতে শোনা যায়, পাকিস্তানের সেনা কর্মকর্তারা তার সঙ্গে 'খুব ভালো' ব্যবহার করছেন।

ভিডিওতে এক আন্তরিক পরিবেশে দেখা গেছে পাইলট অভিনন্দকে। এসময় তিনি বলছিলেন, 'আমি এই কথোপকথনের রেকর্ড রাখতে চাই। আমি আমার দেশে ফিরে গেলেও বক্তব্য পাল্টাব না। পাকিস্তানের সেনা কর্মকর্তারা আমাকে খুব ভালোভাবে দেশেশুনে রেখেছেন'।

ভিডিওতে অভিনন্দকে বলতে শোনা যায়, 'দুর্ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা পর্যন্ত এখন যেখানে আছি; ক্যাপ্টেন, সেনা সদস্য এবং সেনা কর্মকর্তারা- সবাই আমার সঙ্গে ভালো ব্যবহার করেছে। আশা করব আমার দেশের সেনারাও এমন আচরণ করবে। পাকিস্তান সেনাদের প্রতি আমি খুবই মুগ্ধ।'

এরপর কথোপকথনের এক পর্যায়ে আরও কিছু ব্যক্তিগত প্রশ্ন করা হয় পাইলটকে। তবে তিনি এসব প্রশ্নের উত্তর দেননি।

নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করে চালানো হামলার সময় পাকিস্তানের হাতে আটক হন পাইলট অভিনন্দন। পাকিস্তানের পক্ষ থেকে এদিন প্রথমে দুইটি বিমান ভূপাতিত ও দুইজন পাইলটকে আটকের কথা জানানো হয়। অবশ্য পরে কোনও ব্যাখা ছাড়াই পাকিস্তান জানিয়েছে, একজন পাইলট আটক করেছে তারা।

ভারতীয় পাইলটকে আটকের পর রেডিও পাকিস্তানের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়। সেখানে হাতবাঁধা ও রক্তাক্ত অবস্থায় দেখা যায় এক ব্যক্তিকে। তাকে পরিচয় দিতে দেখা যায় ভারতীয় পাইলট অভিনন্দন হিসেবে।

ওই ঘটনার পর প্রথমে স্বীকার না করলেও সন্ধ্যার দিকে উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে পাকিস্তানের হাতে আটকের কথা স্বীকার করে ভারত। এসময় তার যেন কোনও ক্ষতি করা না হয় সে ব্যাপারেও পাকিস্তানকে সতর্ক করে অবিলম্বে তার মুক্তি দাবি করা হয়।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় দেশটির আধা সামরিক বাহিনীর গাড়িবহরে আত্মঘাতী হামলায় অন্তত ৪০ জন জওয়ান নিহত হন। পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মুহাম্মদ এই হামলার দায় স্বীকার করে। তবে পাকিস্তান সরকার তা অস্বীকার করে আসছে।

এরই মধ্যে পুলওয়ামা হামলার জবাব দিতে মঙ্গলবার ভোররাতে পাকিস্তানের ভেতরে অভিযান চালায় ভারত। সেখানে তাদের অভিযানে ৩০০ জঙ্গি নিহত হয় বলে দাবি ভারতের। তবে পাকিস্তান তা প্রত্যাখ্যান করেছে।

দুই দেশের মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যে বুধবার ভারতের পক্ষ থেকে পাকিস্তানের একটি এবং পাকিস্তানের পক্ষ থেকে ভারতের দুটি বিমান ভূপাতিত করার দাবি করা হয়।

বিষয়টি নিয়ে বিকেলে টেলিভিশনে কথা বলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এসময় তিনি পুলাওয়ামাকাণ্ড নিয়ে পাকিস্তান যদি কোনওভাবে জড়িত থাকে তার তদন্ত করা হবে জানিয়ে ভারতের উদ্দেশে বলেন, আসুন আলোচনার টেবিলে বসে সমস্যা সমাধান করি।

দুই দেশের মধ্যে চলমান সংকট নিরসনে অবিমলম্বে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ।