‘সিনেমা তৈরির সময় অন্য সিনেমাগুলো নিয়েও ভাবি'

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

৯১তম অস্কারে সেরা চলচ্চিত্র না হলেও 'রোমা'র জন্য সেরা পরিচালক ও সেরা চিত্রগ্রাহকের অস্কার জিতেছেন মেক্সিকান পরিচালক আলফনসো কুয়ারন। স্প্যানিশ ভাষায় নির্মিত সাদাকালো ছবিটিতে নিজের শৈশবের আবেগপ্রবণ গল্প বলেছেন তিনি। বিদেশি ভাষার ছবি বিভাগেও সেরা 'রোমা'।হলিউডের কয়েকটি পত্রিকা অবলম্বনে 

অস্কার জয়ের পর আপনার কাছে কি পৃথিবীটা বদলে গেছে?

যে সময় ভীতি এবং ক্রোধ আমাদের জীবনকে ছিন্নবিচ্ছিন্ন করে দিচ্ছে, সেই সময় একজন বাড়ির কাজের সহকারীর জীবনই হলো আমার কাছে আসল পৃথিবীর মতো। পৃথিবীজুড়ে চলমান বিচ্ছিন্নতা কখনও কোনো কিছুর সমাধান হিসেবে চিহ্নিত হতে পারে না। এই পুরস্কার সব গৃহকর্মীর জন্য।

আপনার নির্মিত 'রোমা' বড় ক্যানভাসের সিনেমা...

প্লটের চেয়েও এই সিনেমায় পুরো সিনেম্যাটিক অভিজ্ঞতা দেখেছি। অধিকন্তু এটা ছিল সেই ধরনের কাজ যা সিনেম্যাটিক অভিজ্ঞতা ডিমান্ড করে। সব সময়ই যখন কোনো নতুন সিনেমা শুরু করি, মনে মনে বলি, এটা খুবই সাধারণ একটি সিনেমা। স্প্যানিশ ও মেক্সিকান ভাষায় নির্মিত সাদাকালো ছবি এটি। ছবিতে আমি আমার শৈশবের গল্প বলেছি। একটা সময় মেক্সিকো সিটির আবাসিক এলাকা রোমায় বেড়ে উঠেছি। ফলে সেই অভিজ্ঞতা নিয়ে নির্মাণ করেছি ছবিটি। 'রোমা'তে সত্তর দশকের গোড়ার দিককার মধ্যবিত্ত পরিবারের এক বছরের গল্প তুলে ধরার চেস্টা করেছি। 

'রোমা' নির্মাণের সময় কোনো প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়েছেন?

অবশ্যই। তবে সচেতনভাবেই প্রতিবন্ধকতাগুলোর প্রভাব ও সূত্রগুলোকে এড়িয়ে গিয়েছি। যদিও এটা খুবই কঠিন। কারণ আমি সব সময় সিনেমা তৈরির সময় অন্য সিনেমাগুলো নিয়ে ভাবি। এর আগে অনেক সিনেমা দেখেছি অনুপ্রেরণা নেওয়ার জন্য। যদিও সেগুলো ছিল রোমা থেকে একেবারেই আলাদা। আমি আসলে চাই দর্শকের সঙ্গে একটি আবেগের রাস্তা তৈরি করতে; এবং সেটি অবশ্যই যতটা  সম্ভব সহজ ভাষায়। রোমায় কোনো কিছুর প্রভাব থাকুক তা কখনোই চাইনি। যখন একটি শটের জন্য ফ্রেম তৈরি করি, তখন সবসময় আমার ভেতরের ব্যাপারগুলোকে স্মরণ করি। যখন দৃশ্যগুলো দেখি, আমি আবিস্কার করি এটা আসলে ওইসব সিনেমার রেফারেন্স ছিল। তখন ভাবি, যা চেয়েছি এটা তা নয়। রোমা ছবির নকশাকার আমাকে বলেছিলেন, এটা সুন্দর দৃশ্য। আমি বলেছিলাম, এটা সুন্দর, কারণ এটা অন্য কেউ আমাদের চোখে সুন্দর বলে লাগিয়ে দিয়েছে। কিন্তু এটা এই সিনেমার জন্য নয়। 

আপনি বলেছিলেন এটা আপনার শৈশবের অভিজ্ঞতার ওপর বানানো...

প্রত্যেক মানুষের অভিজ্ঞতা তার একটি দীর্ঘ প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত থাকে। যখন আপনি একটি চাকরি শুরু করেন, তখন ব্যক্তিগত কাজের চেয়ে এটাকে অনেক লম্বা মনে হয়। তখন আপনার জীবনে পাশাপাশি দুটি বাস্তবতা এগিয়ে চলে। চলার পথে প্রত্যেকটি বাধা-বিপত্তি আপনার প্রকল্পকে এক ভিন্ন ধরনের গতি তৈরি করে। আপনি সেই বাস্তবতার সঙ্গে যতবার মুখোমুখি হন, আপনি ভিন্ন কিছু অনুভব করেন। কখনও কখনও এই ভিন্নতা নিজের মধ্যে রূপান্তর সৃষ্টি করে। হয়তো আমার জীবনেও তাই ঘটেছে। 'রোমা'য় প্রত্যেকেরই একটি বিষয়ের দিকে ফোকাস থাকবে। তা হলো- তাদের নিজেদের স্মৃতি। এটা হতে পারে সুখের বা বিষাদময়। স্মৃতির মুখোমুখি হওয়া মানে পেছনে ফেলে আসা সময়ের সঙ্গে বাস করা। রোমার স্মৃতির সঙ্গে আমার তিন বছরের বসবাস। শুধু বসবাসই নয়, এটা অনেকটা স্মৃতির গোলকধাঁধাঁর দরজা খুলে দেওয়ার মতো।