টঙ্গীতে ‘ডাকাতের কবলে’ ডিআরইউ সম্পাদক

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ময়মনসিংহের ত্রিশালে যাওয়ার পথে গাজীপুরের টঙ্গীতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ‘ডাকাতের কবলে’ পড়েছেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান।

বৃহস্পতিবার রাতের ওই ঘটনায় তিনি টঙ্গী পশ্চিম থানায় অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন বলে ওসি ইমদাদুল হক জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সশস্ত্র ডাকাতরা গাড়ির কাচ ভেঙে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, মোবাইল ফোন ও গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র লুটে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়। 

ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে কবির আহমেদ আহত হয়েছেন। ওই গাড়িতে তার স্ত্রী ও দুই সন্তানও ছিলেন।

কবির আহমেদ বলেন, স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে ব্যক্তিগত গাড়িতে করে তিনি ত্রিশালে গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছিলেন।

রাত ১টার দিকে টঙ্গীর গাজীপুরা বাঁশ পট্টির কাছে গাড়ি যানজটে পড়লে ৫-৬ জনের একটি দল রাম দা ও চাপাতি নিয়ে গাড়িতে হামলা করে। প্রথমে তারা চালকের পাশের জানালার কাচ ভেঙে ফেলে। তারপর কবির আহমেদের দুই সন্তানের গলায় ধারালো অস্ত্র ঠেকিয়ে সব কিছু দিয়ে দিতে বলে।

কবির আহমেদ বলেন, সন্তানদের প্রাণ রক্ষার জন্য তার স্ত্রী সব গয়না খুলে দিতে বাধ্য হন। ডাকাতরা তিনটি আঙটি, এক জোড়া চুড়ি নেওয়ার পর ভ্যানেটি ব্যাগ ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রও লুটে নেয়।

এ সময় ঘটনাস্থলের উল্টো দিকের চেকপোস্টের পুলিশ থাকলেও তারা এগিয়ে আসেনি বলে অভিযোগ করেছেন ডিআরইউ সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে তিনি টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসিকে ফোন করলেও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ওসি ইমদাদুল হক বলেন, খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গেই তারা ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু মহাসড়কে যানজটের কারণে পুলিশ পৌঁছানোর আগেই ডাকাতরা পালিয়ে যায়।

সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খানের গাড়িতে হামলার এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও নিন্দা জানিয়েছে ডিআরইউ।