বাংলা অলিম্পিয়াডে পুরস্কার জিতল ১৪৩ শিক্ষার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত বাংলা অলিম্পিয়াডে অংশ নিয়ে পুরস্কার জিতেছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ১৪৩ জন শিক্ষার্থী।

শনিবার ইংরেজি মাধ্যম ও ইংরেজি ভার্সন স্কুলের অংশগ্রহণের ওই অলিম্পিয়াডে বিজয়ীদের পুরস্কার তুলে দেয় আয়োজক প্রতিষ্ঠান উত্তরার ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুল বাংলাদেশ।

এর আগে ২৩ ফেব্রুয়ারি অলিম্পিয়াডের চূড়ান্ত পর্বে কবিতা আবৃত্তি, সঙ্গীত, চিত্রাঙ্কন, উপস্থিত বক্তৃতা, নৃত্য ও রচনা প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা।

 এবার চিত্রাঙ্কনে ‘এ’ গ্রুপে প্রথম স্থান অর্জন করেছে মানারাত ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী জারিফা তাসনিম, বি গ্রুপে প্রথম হয়েছে সাউথ ব্রিজ স্কুলের ছাত্রী সৈয়দা লামিসা রেজা এবং সি গ্রুপে প্রথম হয়েছে রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের শাহরিয়ার লতিফ।
রচনা প্রতিযোগিতায় ‘এ’ গ্রুপে ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুল বাংলাদেশ-এর ফাইযা ফাতেমা মনজুর এবং বি গ্রুপে হার্ডকো ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের আজমেরি হোসাইন প্রথম স্থান অর্জন করেছে। 

 উপস্থিত বক্তৃতায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী তনিমা ইসলাম।
দলীয় নৃত্যে ‘এ’ এবং বি গ্রুপে প্রথম পুরস্কার পেয়েছে ডিপিএস স্কুল।

আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় ‘এ’ গ্রুপে একাডেমিয়া ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের লাবিবা বিনতে এজাজ, বি গ্রুপে সামারফিল্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের মির্জা আয়মান ইফতিশাম এবং সি গ্রুপে ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুলের নওশীন তাবাস্সুম ও রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের ইরতিজা আলম জয়িতা দ্বৈতভাবে প্রথম হয়েছে।

 সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে ‘এ’ গ্রুপে লাইফ প্রিপারেটরি স্কুলের বুশরা বিনতে তুবা, বি গ্রুপে রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের অর্ণব কুমার মোদক, সি গ্রুপে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইরতিজা আনাম, ডি গ্রুপে বিদেশি শিক্ষার্থীদের মধ্যে ডিপিএস স্কুলের দীক্ষা জাওয়াইরা এবং ই গ্রুপে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল টিউটোরিয়ালের ছাত্র শৌনক ঘোষ।
আয়োজকদের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সারা দেশের প্রায় ১০০টি ইংলিশ মিডিয়াম ও ইংলিশ ভার্সন স্কুলের শিক্ষার্থীরা এবারের অলিম্পিয়াডে অংশ নেন।

 শনিবারের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে খ্যাতিমান চিত্রশল্পী মনিরুল ইসলাম প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন।
আবৃত্তিশিল্পী শিমুল মুস্তাফার উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য দেন ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুল বাংলাদেশের অধ্যক্ষ রোকসানা জারিন।

ইন্টারন্যাশনাল হোপ স্কুল বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ইয়াশার সাভরান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।