আইফোনের দাম কমাচ্ছে চীনের অনলাইন বিক্রেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

পূর্বাভাস এমনই ছিল। বিক্রি বাড়াতে দেশভেদে আইফোনের দাম কমানো হতে পারে। এরই অংশ হিসেবে চীনের অনলাইন খুচরা বিক্রেতারা আইফোনের দাম কমাতে শুরু করেছে। এবারই প্রথম নয়, চলতি বছরের শুরুতেও চীনের অনলাইন খুচরা বিক্রেতারা আইফোনের সব সংস্করণের দাম একধাপ কমিয়েছিল

বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্মার্টফোন বাজার চীন। আইফোন ডিভাইসের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বাজার দেশটি। গত কয়েক প্রান্তিকে বাজারটিতে আইফোন বিক্রি উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে। বিক্রি বাড়াতে চীনের একাধিক অনলাইন খুচরা বিক্রেতা আইফোন ডিভাইসের দাম কমাতে শুরু করেছে।

অ্যাপলের রাজস্বের বড় অংশ আসে আইফোন বিক্রি থেকে। গত ডিসেম্বরে শেষ হওয়া প্রান্তিকে আইফোন বিক্রি কমার কারণে টেক জায়ান্টটির রাজস্বেও টান পড়েছিল। বিক্রি কমার জন্য ডলারের বিপরীতে বিদেশী মুদ্রার অবমূল্যায়ন, চীনের অর্থনীতিতে মন্থরগতি ও তীব্র প্রতিযোগিতার পাশাপাশি আইফোনের চড়া দামকেও দায়ী করা হয়। এ অবস্থায় স্মার্টফোন বাজারে অবস্থান ধরে রাখতে অ্যাপল চীনসহ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বাজারে আইফোনের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

চীনের অনলাইন গ্যাজেট বিক্রেতা সানিং ডটকম জানিয়েছে, তারা আইফোন এক্সএসের দাম প্রকৃত দামের চেয়ে ১ হাজার ইউয়ান বা ১৪৮ দশমিক ৯৫ ডলার কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গত জানুয়ারিতেও সানিং চীনের অন্যান্য অনলাইন খুচরা বিক্রেতার সঙ্গে মিলে আইফোনের দাম কমিয়েছিল। তবে সে সময় আইফোন এক্সএসের দাম কমানো হয়নি।

চীনে দামি পণ্যের অন্যতম ই-কমার্স সাইট পিনডুয়োডুয়ো ইনকরপোরেশন। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, তারা আইফোন এক্সএসের ৬৪ গিগাবাইট রম সংস্করণ ৬ হাজার ৯৯৯ ইউয়ানে বিক্রি করবে, যা ডিভাইসটির অফিশিয়াল দামের চেয়ে ১ হাজার ইউয়ান কম।

চীনের অনলাইন খুচরা বিক্রেতা জায়ান্ট জেডি ডটকম একগুচ্ছ অ্যাপল পণ্য অফিশিয়াল দামের চেয়ে কমে বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে। এসব অ্যাপল পণ্যের তালিকায় রয়েছে আইফোন এক্সএস ও আইফোন এক্সএস ম্যাক্স। এর মধ্যে আইফোন এক্সএস ম্যাক্স ডিভাইসটি অফিশিয়াল দামের চেয়ে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৭০০ ইউয়ান ছাড়ে বিক্রি করা হবে। সানিং ডটকমের মতোই গত জানুয়ারিতে আইফোন এক্সএসের দাম কমায়নি জেডি ডটকম।

অ্যাপলের সর্বশেষ আর্থিক খতিয়ান অনুযায়ী, চীনে প্রতিষ্ঠানটির বিক্রি কমেছে ২০ শতাংশ। দেশটিতে স্মার্টফোনের চাহিদা হ্রাস ও ক্রমবর্ধমান প্রতিযোগিতাকে আইফোন বিক্রি কমার প্রধান কারণ দাবি করা হয়। চীনের স্মার্টফোন বাজারে স্থানীয় ডিভাইস নির্মাতাদের কারণে চাপে রয়েছে স্যামসাং ও অ্যাপলের মতো শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ডগুলো।

অ্যাপল চীনের ওয়েবসাইটে এখনো আইফোনের দাম কমানো হয়নি। তবে দেশটিতে আইফোন বিক্রি বাড়াতে অ্যান্ট ফিন্যান্সিয়ালের পাশাপাশি স্থানীয় একাধিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে অ্যাপল। এ চুক্তির আওতায় চীনের আইফোন ক্রেতাদের বিনা সুদে ঋণ দেয়া হবে। বিনা সুদে ঋণ সুবিধা দেশটির স্থানীয় ডিভাইস নির্মাতাদের সঙ্গে প্রতিযোগিতা জোরদার ও আইফোন বিক্রি বাড়াতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে মনে করা হচ্ছে।

অ্যাপল চায়নার ওয়েবসাইটের তথ্যমতে, দেশটির গ্রাহকরা প্রতি মাসে বিনা সুদে ২৭১ ইউয়ান (৪০ দশমিক ৩১ ডলার) পরিশোধের মাধ্যমে কিস্তিতে আইফোন এক্সআর কিনতে পারবেন। এছাড়া মাসিক ৩৬২ ইউয়ান কিস্তি পরিশোধের মাধ্যমে আইফোন এক্সএস কিনতে পারবেন।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ই-কমার্স জায়ান্ট আলিবাবা নিয়ন্ত্রিত অ্যান্ট ফিন্যান্সিয়ালের সহযোগী প্রতিষ্ঠান হুয়াবেইয়ের মাধ্যমে চীনা গ্রাহকদের বিনা সুদে কিস্তিতে আইফোন কেনার সুবিধা দিচ্ছে অ্যাপল। অ্যান্ট ফিন্যান্সিয়াল ছাড়াও চায়না কনস্ট্রাকশন ব্যাংক করপোরেশন, চায়না মার্চেন্টস ব্যাংক কোম্পানি লিমিটেড, এগ্রিকালচার ব্যাংক অব চায়না লিমিটেড ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড কমার্শিয়াল ব্যাংক অব চায়না লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে অ্যাপল।