‘ডিম বালককে’ প্রতিহত করা সেই ব্যক্তি ‘সন্ত্রাসী’

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

অস্ট্রেলীয় সিনেটর ফ্র্যাজার অ্যানিংয়ের মাথায় ডিম ভাঙা সেই বালককে প্রতিহত করা ব্যক্তি একজন ‘সন্ত্রাসী’।  

নিউজল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর আপত্তিকর মন্তব্য করায় অস্ট্রেলীয় সিনেটরের মাথায় ডিম ভাঙেন ১৭ বছর বয়সী উইল কনোলি নামের বালক। তখন নেইল এরিকসন নামে ডানপন্থী এক কর্মী ডিম বালককে মেরে মাটিতে শুইয়ে ফেলে। বা-হাত দিয়ে ডিম বালকের মাথা চেপে ধরে রাখে। পরে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয় তাকে।

দ্য ইনডিপেনডেন্টের প্রতিবদনে বলা হয়, গত বছর একটি চার্চে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালায় এরিকসন। ধারালো তলোয়ার, মেগাফোন বহন এবং চার্চে আসা অনেকে মারধর করে রীতিমত ঝড় তোলেন তিনি।

নিউ সাউথ ওয়ালেস পুলিশ নিশ্চিত করেছে, গত বছর মে মাসে এ ঘটনার পর এরিকসনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

তারা বলেন, একজন ধর্মীয় জাজককে দায়িত্ব পালন থেকে সরিয়ে দেওয়ার হুমকি ও অন্য জাজকদের দায়িত্ব পালনে বাধা দেওয়ার অভিযোগে এরিকসন গত বছর সেপ্টেম্বরে গসফোর্ডের স্থানীয় আদালতে হাজিরা দিতে ব্যর্থ হয়।

এবিসির নিউজে বলা হয়, ৩৪ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে নন-কাস্টডিয়াল গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। 

এদিকে ঘটনার পর ফাদার বোয়ার বলেন, ‘এটা দুঃখজনক আমাদের দেশের একজন সিনেটর তার চারপাশে এমন নীতিগতভাবে প্রশ্নবিদ্ধ লোক রাখেন।’ তিনি টুইট করেন, ‘যদি তাকে উত্তরের সীমান্তে দেখতে পান তবে পুলিশকে ফোন দেবেন।’

এর আগেও শহরের গ্রেটার বেনডিগো অফিসে ডানপন্থী নেতাদের সঙ্গে নিয়ে মসজিদ নির্মাণের প্রতিবাদে মুসলমানদের বিরুদ্ধে ‘খুবই অবমাননাকর বক্তব্য’ দেয় এরিকসন। এ ঘটনায়ও তিনি দোষী সাব্যস্ত হন।তখন ওই মামলায় এরিকসন ও তার দুই সহ-প্রতিদ্বন্দ্বিকে দুই হাজার অস্ট্রেলিয়ান ডলার জরিমানা করা হয়।  

যখন সিনেটর ফ্র্যাজার অ্যানিংয়ের মাথায় ডিম ভাঙা হয়, তখন এরিকসন একটি দরজার কাছে দাঁড়িয়ে ছিল। বিল্ডিংয়ে অন্য কিছু যাতে না ঘটে সেগুলো নিয়ন্ত্রণ করছিলেন তিনি। মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় আপত্তিকর মন্তব্য দিতে সংবাদ সম্মেলনের আগে ওই সিনেটরকে মাইক ধরতে সাহায্য করেছিলেন এরিকসন।  ডিম বালক এরিকসনের পেছনে ছিল। ডিম ছোড়ার আগে এরিকসনকে নিজের ফোনে ছবি তুলতে দেখেন ডিম বালক। এছাড়া ডিম ছোড়ার আগে ওই সিনেটর এরিকসনসহ দুইবার ডিম বালককে ধাক্কা দেয়।