‘নরেন্দ্র মোদি’র মুক্তি নিয়ে সংশয়

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

১৭তম লোকসভা নির্বাচনের আগেই ভারতে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বায়োপিক।

 

তবে নির্বাচনী আচরণবিধির কারণে বায়োপিকটি ৫ এপ্রিল মুক্তি পাবে কি না তা খতিয়ে দেখছে দেশটির নির্বাচন কমিশন। সেন্সর বোর্ডের দ্বারস্থ হয়েছে তারা।

আচরণবিধি সত্ত্বেও ছবিটির বিজ্ঞাপন সংবাদপত্রে ছাপা হওয়ায় সংশ্লিষ্ট কাগজকে ইতিমধ্যেই কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন পূর্ব দিল্লি লোকসভা কেন্দ্রের রিটার্নিং অফিসার।

যেখানে বিজ্ঞাপন ঘিরেই প্রশ্ন, তখন ছবিটি ভোটের মৌসুমে দিনের আলো দেখবে কি না, তা নিয়ে রীতিমতো সংশয় তৈরি হয়েছে।

 

এছাড়া ছবির মুক্তি আটকাতে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে কংগ্রেস ও ডিএমকে। সরব হয়েছে সিপিএম। বিরোধী দলের নেতারাও এটাকে মোদি ও বিজেপির পরোক্ষ প্রচার বলেছেন।

প্রসঙ্গত আগামী ১২ এপ্রিল ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি’ সিনেমাটির মুক্তির কথা ছিল।

তবে মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে সিনেমাটির প্রযোজক জানিয়েছেন, আগামী ৫ এপ্রিল হিন্দি ছাড়াও তামিল ও তেলেগু ভাষায় মুক্তি পাবে সিনেমাটি।

প্রযোজকের দাবি, মানুষের চাহিদার কারণে সিনেমাটি আগেভাগেই মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মনমোহন সিংয়ের বায়োপিকের পর এটি হতে যাচ্ছে দ্বিতীয় কোনো ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর বায়োপিক।

ছবিটিতে নরেন্দ্র মোদির নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন বলিউড অভিনেতা বিবেক ওবেরয়।

এছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে থাকছেন বোমান ইরানি, রাজেন্দ্র গুপ্ত, ইয়াতিন কারেকার, প্রশান্ত নারায়ণ, জরিনা ওয়াহাব এবং মনোজ জোসি।

সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন সন্দীপ সিং। আর পরিচালনা করেছেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক ওমাং কুমার।

১১ এপ্রিল থেকে শুরু হবে ভারতের সাধারণ নির্বাচনের সাত দফার ভোটগ্রহণ। ১৮ এপ্রিল, ২৩ এপ্রিল, ২৯ এপ্রিল, ৬ মে, ১২ মে ও ১৯ মে ভোটগ্রহণের পর গণনা ও ফলাফল ঘোষণা করা হবে ২৩ মে।

 সিনেমাটিতে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদির উত্থান বর্ণনার পাশাপাশি তার জীবনের গল্প তুলে ধরা হয়েছে। ছবিতে মোদির বিরুদ্ধে বিরোধী নেতাদের রাজনীতিও তুলে ধরা হয়েছে।