প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ চান আন্দোলনরত শিক্ষকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

এমপিওভুক্তির দাবিতে শুক্রবার দ্বিতীয় দিনের মতো জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশন। এদিন শিক্ষক নেতাদের সঙ্গে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসাইনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এমপিওভুক্তির দাবি নিয়ে শিক্ষকরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে চান। তবে এ বিষয়ে সচিব সুনির্দিষ্ট আশ্বাস দিতে পারেননি। প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ছাড়া শিক্ষকরা ঢাকা ছাড়বেন না বলে সচিবকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। তারা আরও বলেন, সরকার দাবি পূরণের যে আশ্বাস গত বছর দিয়েছিল, তা আদায় করেই এবার ফিরবেন।

দেশের বিভিন্ন বেসরকারি স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারীরা তাদের পরিবারের সদস্য ও সন্তানদের নিয়েই অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। অনেকের হাতে রয়েছে, 'আমার মায়ের বেতন চাই, চাকরি আছে বেতন নাই', 'মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাকে কিছু বলতে চাই', 'উই ওয়ান্ট এমপিও'— এ ধরনের নানা স্লোগান সংবলিত প্ল্যাকার্ড। শুক্রবার শিক্ষকরা রাস্তার ওপরই জুমার নামাজ আদায় করেন।

সরকারপ্রধানের আশ্বাস পেয়ে আট মাস আগে প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে ১৭ দিনের অনশন ভেঙে বাড়ি ফিরে গিয়েছিলেন এমপিওর বাইরে থাকা শিক্ষক-কর্মচারীরা। কিন্তু তাদের আশ্বাস পূরণ না হওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে তারা আবার রাস্তায় অবস্থান নেন।

 

আন্দোলনরত শিক্ষকরা বলছেন, সরকার দাবি পূরণের যে আশ্বাস গত বছর দিয়েছিল, তা আদায় করেই এবার ঘরে ফিরবেন তারা— সমকাল

ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার সমকালকে বলেন, শুক্রবার সচিব ফোন করে তাদের অফিসার্স ক্লাবে ডাকেন। সংগঠনের নির্বাহী পরিষদের সদস্যদের নিয়ে তিনি সচিবের সঙ্গে দেখা করেন। সচিব বলেছেন— 'সরকারের ওপর আস্থা রেখে চলে যান।'

তিনি আরও বলেন, 'প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য সচিবকে বলেছি। এ ব্যাপারে তিনি শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দিয়েছেন।'

তবে শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে তাদের কোনো কথা হয়নি বলে জানান ডলার।

প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের কেউ এখন পর্যন্ত যোগাযোগ করেননি জানিয়ে শিক্ষকদের এই নেতা বলেন, 'প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ না পাওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন কর্মসূচি প্রত্যাহার করবো না।'

এদিকে অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে অসুস্থ হয়ে পড়ায় শৈলেন চন্দ্র মজুমদার নামে ৫০ বছর বয়সী এক শিক্ষককে বৃহস্পতিবার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।