ছবিতে আমাকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করা হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

মঞ্চ নাটক দিয়ে অভিনয়ে আসেন আনিসুর রহমান মিলন। পরে টিভি নাটকে এসে জনপ্রিয়তা পান। পাঁচ বছর ধরে সিনেমাতেও অভিনয় করছেন।

 

এছাড়া চিত্রপরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। অভিনয় ও প্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

 ঈদের নাটকের কাজ শুরু করেছেন?

** মিলন: হ্যাঁ। কয়েকদিন আগে ঈদের সিক্যুয়াল একটি নাটকে অভিনয় করেছি। ফিরোজ কবির ডলারের পরিচালনায় নাটকটির নাম ‘আইজু দ্য ভাই’। এতে আমি নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছি। এবার নাটকটির তৃতীয় সিক্যুয়াল তৈরি হয়েছে। এটি ঈদে দীপ্ত টিভিতে প্রচার হবে। এছাড়া শিগগিরই একখণ্ড ও ঈদ ধারাবাহিকের কাজ শুরুর প্রস্তুতি রয়েছে।

 ধারাবাহিক নাটকেই বেশি দেখা যাচ্ছে...

** মিলন: নাটক দিয়েই কিন্তু আমি প্রথম দর্শকপ্রিয়তা পাই। তাই এ অঙ্গনে নিয়মিত কাজ করি। বর্তমানে ফরিদুল হাসানের পরিচালনায় ‘লাকি থার্টিন’ ও সঞ্জিত সরকারের পরিচালনায় ‘চিটিং মাস্টার’ নাটক দুটি ধারাবাহিকে নিয়মিত অভিনয় করছি। নাটক দুটি আরটিভিতে প্রচার হচ্ছে। দর্শকও আগ্রহ নিয়ে এগুলো দেখছেন। আরও কয়েকটি ধারাবাহিক শিগগিরই প্রচারে আসবে।

 নতুন কোনো বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন?

** মিলন: প্রায় চার বছর পর নতুন একটি বিজ্ঞাপনে কাজ করেছি। এতে আমার সহশিল্পী অপর্ণা ঘোষ। বর্তমানে এর পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে। আগামী ঈদের আগেই এটির প্রচার শুরু হবে বলে জেনেছি।

 ছবির বাজার মন্দাবস্থায়ও আটটি ছবির কাজ আপনার হাতে রয়েছে বলে জেনেছি। বিষয়টি আপনার জন্য কতটা সৌভাগ্যের?

** মিলন: এতগুলো ছবির কাজে ব্যস্ত থাকা আমার জন্য সৌভাগ্যের বিষয়। আমি অভিনয় এনজয় করি। সততার সঙ্গে কাজ করার চেষ্টা করি। হয়তো এজন্য নির্মাতা ও দর্শক আমার সঙ্গে আছেন। বর্তমানে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের পরিচালনায় ‘গাঙচিল’, জুবায়ের ইবনে বকরের ‘লীলাবতি’, আরিফুজ্জামান আরিফের ‘কাঠগড়ায় শরৎচন্দ্র, অনিরুদ্ধ রাসেলের ‘জামদানি’, ওয়াজেদ আলী সুমনের ‘ফালতু’, রাশিদ পলাশের ‘নাইওর’ এবং সুমন রেজার ‘ঝুম’ ছবিগুলোতে কাজ করছি। এছাড়া শাহ আলমের ‘গুণ্ডাগিরি’ ছবিটি সেন্সর পেয়েছে। শিগগিরই এটি মুক্তি পাবে বলে জেনেছি।

 ২০১৩ সাল থেকে ছবিতে অভিনয় করছেন। এ পাঁচ বছরের পথচলা নিয়ে আপনার অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

** মিলন: এ অল্প সময়ে আমার অভিনীত ১৬টি ছবি মুক্তি পেয়েছে। দর্শকের কাছ থেকেও প্রত্যাশা অনুযায়ী সাড়া পেয়েছি। তবে আমার মনে হয় এখনও ছবিতে আমাকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করা হয়নি। যে ছবিগুলোতে আমাকে নেয়া হয়েছে, তাতে চরিত্রের অনিবার্যতার জন্যই আমাকে নিয়ে কাজ করা হয়েছে। নাটকে কিন্তু নানামাত্রিক ঢঙে আমাকে নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করা হয়েছে। আমার পেশা যেহেতু অভিনয় করা, তাই আমি আমৃত্যু অভিনয় করে যাব।

ছবি পরিচালনার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে শোনা গেছে....

** মিলন: কিছুদিন থেকেই ছবি নির্মাণের ইচ্ছা জেগেছে। এরমধ্যে এর গল্পও তৈরি হয়েছে। এখন প্রযোজক চূড়ান্ত করার কাজ চলছে। আমি চাই, আমার পরিচালিত প্রথম ছবি সব দিক থেকে ভালো হয় এবং সব শ্রেণীর দর্শক যেন ছবিটি দেখেন, সেই পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা আছে। তবে সেই ছবিতে আমি অভিনয় করব না।