হিন্দি ছবির ইতিহাসে আয়ে সেরা ছবি কোনগুলো?

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

বাহুবলী, সঞ্জু, দঙ্গল, পিকে, টাইগার জিন্দা হ্যায়, বজরাঙ্গি ভাইজান, পদ্মাবত, সুলতান, ধুম থ্রি ও উরি: দ্য সার্জিক্যাল স্ট্রাইক। এগুলো ভারতের ব্যবসা সফল ছবি। শুধু ব্যবসা সফল নয় বক্স অফিসে হইচই ফেলে দিয়েছে এসব ছবি। এগুলোর মধ্য অন্যতম আলোচ্য বিষয় হলো যুদ্ধভিত্তিক ছবির জয়জয়কার। ভারতীয় সিনেমার বাণিজ্য বিষয়ক বিশ্লেষক তরুন আদর্শ টুইটের বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে এসব কথা বলা হয়েছে।


ভিকি কুশল অভিনীত উরি: দ্য সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ছবিটি মুক্তি পেয়েছে জানুয়ারিতে। এর মধ্যেই ছবিটি হিন্দি ছবির ইতিহাসে সর্বোচ্চ আয়ের সেরা ১০-এ জায়গা করে নিয়েছে। ১১ জানুয়ারি মুক্তির পর সফলতার সঙ্গে টানা ১১ সপ্তাহ ধলে চলেছে ভারতের প্রেক্ষাগৃহে। সব মিলিয়ে ভারতের বাজার থেকে ছবিটির আয় প্রায় ২৫০ কোটি রুপি।

তরুন আদর্শ টুইট বার্তায় উরির সাফল্যর বিষয়টি তুলে ধরেন। টুইটে তিনি বলেন ‘হিন্দি’ ছবির ইতিহাসে সর্বোচ্চ আয়ের তালিকায় উরি দশম স্থানে আছে।


তালিকার শীর্ষে বক্স অফিসে হইচই ফেলে দেওয়া প্রভাস-আনুশকার বাহুবলী। দক্ষিণের এই ছবিটির হিন্দি ভাষায় ডাব করায় সিংহাসনের লড়াই, রাজত্ব রক্ষায় যুদ্ধ, প্রেমে মজে যায় ভারতসহ বিশ্বের হিন্দিভাষী ও অন্য সিনেমা প্রেমীরা। ১ হাজার কোটি রুপি আয় করা প্রথম ভারতীয় সিনেমাও বাহুবলী। দুই পর্বের সিনেমার পর প্রভাস-আনুশকা শেট্টির প্রেমের বিষয়টিও চাওর হয়। আর প্রভাসের বিয়ের খবর নিয়ে সরগরম থাকে গণমাধ্যম। বাহুবলীর পরের সিনেমাগুলো হলো মিস্টার পারফেরশনিস্ট আমির খানের দাঙ্গাল, সঞ্জয় দত্তের জীবনী নিয়ে লাভার বয় রণবীর কাপুরের ছবি সঞ্জু, আমির খান-আনুশকা শর্মার পিকে, সালমান খান-ক্যাটরিনার টাইগার জিন্দা হ্যায়, সালমান-কারিনা-নওয়াজউদ্দিনের বজরঙ্গি ভাইজান, রনবীর সিং-দিপীকা পাড়ুকোন-শহীদ কাপুরের পদ্মাবত, সালমান-আনুশকা শর্মার সুলতান, আমির-ক্যাটরিনার ধুম থ্রি ও ভিকি কুশল-ইয়ামি গৌতমের উরি: দ্য সার্জিক্যাল স্ট্রাইক।


বলিউড বক্স অফিসের সর্বশেষ তথ্য মতে, ভারতীয় মুদ্রায় সর্বোচ্চ আয়ের সেরা ১০ হিন্দি ছবির আয়ের দিকের থেকে তালিকা: বাহুবলী: দ্য কনক্লুশন ৫১০ কোটি রুপি, টাইগার জিন্দা হ্যায় ৩৩৯, বজরঙ্গি ভাইজান ৩২০, পদ্মাবত ৩০২, সুলতান ৩০০, ধুম ৩ ২৮৪ ও উরি: দ্য সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ২৪৪ কোটি রুপি। এ ছবিগুলোর আয় ভারতের বাইরে আয় যুক্ত করা হয়নি। এই ছবি ভারতের বাইরে চীন, অস্ট্রেলিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও আয় করেছে।

তবে সবগুলো ছবির তিন-চার বছরের মধ্য মুক্তি পাওয়া। আর এসব ছবির মধ্য আয়ে ক্ষেত্রে উরি একটু এগিয়ে। প্রথম সপ্তাহের তুলনায় দ্বিতীয় সপ্তাহে বেশি অর্থ আয় করে ইতিহাস গড়েছিল উরি। প্রথম সপ্তাহে ছবিটি আয় করেছিল ৩৫ কোটি ৯২ লাখ রুপি এবং দ্বিতীয় সপ্তাহে এ আয় বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ৩৭ কোটি ৭৫ লাখ রুপিতে, তৃতীয় সপ্তাহে ৩৭ কোটি ২ লাখ রুপি, চতুর্থ সপ্তাহে ২৯ কোটি ৩৪ লাখ রুপি, পঞ্জম সপ্তাহে আয় একটু কমে যায়, ১৮ কোটি ৭৪ লাখ রুপি। ১০ ও ১১তম সপ্তাহে আয় কোটি থেকে লাখে (৯৫ লাখ ও ২৯ লাখ) নামে। তবে ১১ সপ্তাহ শেষে মোট আয় দাঁড়ায় ২৪৪ কোটি ৬ লাখ রুপি। উরি নির্মাণে খরচ হয়েছিল শুধু ১৮ কোটি রুপি। ভিকি কুশলের প্রথম ছবি উরি, যা প্রথমবারের মতো ১০০ কোটি আয়ের ক্লাবে জায়গা পায়। এ অভিনেতা এরই মধ্যে অভিনয় দক্ষতা প্রমাণ করে কিছু পুরস্কার অর্জন করেছেন।