দর্শকদের শুটিং দেখার দাওয়াত দিলেন অনন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

নায়ক ও প্রযোজক অনন্ত জলিল বর্তমানে ‘দিন দ্য ডে’ নামের একটি ছবির শুটিং নিয়ে ব্যস্ত আছেন। হলিউডের স্টাইলে ছবিটির শুটিং হচ্ছে বলে দাবী  এ নায়কের। ছবিটির শুটিং দেখলে তাই হলিউডের ছবির শুটিং দেখার অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে বলে জানান অনন্ত। 

তাই দিন দ্য ডে’ ছবির শুটিং দেখার জন্য দর্শকদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন অনন্ত জলিল।  ৯ এপ্রিল বেলা ১১টায় রাজধানীর স্কটিশ ভিলেজ, ডুমনি, খিলক্ষেত (বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বসুন্ধরার ৩০০ ফিট থেকে পিংক সিটি হাউজিং এর পাশে) এলাকায় ‘দিন দ্য ডে’ সিনেমার বেশকিছু অ্যাকশন দৃশ্যের শুটিং করতে যাচ্ছেন অনন্ত জলিল। এখানেই ভক্তদের শুটিং দেখার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তিনি। 

অনন্ত জালিল জানান, কিছুদিন আগে হলিউডের একটি সিনেমা’র শুটিং হয়েছে রাজধানীতে। বুড়িগঙ্গা ব্রিজসহ ঢাকার বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় সিনেমাটির অ্যাকশন দৃশ্য ধারণ করা হয়। শুটিং এতটাই গোপনীয়তার মধ্যে করা হয় যে, খুব কমসংখ্যক মানুষ তা দেখেছে। ফলে হলিউডের সিনেমার শুটিং স্বচক্ষে দেখার সুযোগ অনেকেরই হয়নি। তাই এবার হলিউডের শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা দিতেই ভক্তদের এই নিমন্ত্রণ জানালেন নায়ক। 

অনন্ত জলিল বলেন, ‘ইতোমধ্যে আমাদের সিনেমাটির কিছু অংশের শুটিং ইরান ও আফগানিস্তান সীমান্তের দুর্গম এলাকায় অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণভাবে হয়েছে। আপনারা জানেন শুটিং করতে গিয়ে আমি আহত হয়েছিলাম। এখন সুস্থ হয়ে দেশে সিনেমাটির শুটিং করছি। ইতোমধ্যে ইরান থেকে ১৮ জন বিশ্বমানের টেকনিশিয়ান ও কলাকুশলীর টিম বাংলাদেশে অবস্থান করছে।

ব্যাপক অ্যারেঞ্জমেন্ট এবং ভয়াবহ অ্যাকশন ও এক্সপ্লোসিভের রিয়েল ইফেক্ট নিয়ে সিনেমাটির শুটিং এখন ঢাকায় হচ্ছে । সম্প্রতি হেমায়েতপুরে শিল্প পার্ক এলাকার কাছে ‘রিয়েল কার এক্সপ্লেশনে’র দৃশ্যের শুটিং হয়েছে। আগামী ৯ এপ্রিল বেলা ১১টায় রাজধানীর স্কটিশ ভিলেজ এলাকায় ‘দিন দ্য ডে’ সিনেমার বেশকিছু অ্যাকশন দৃশ্যের শুটিং করবো। এ অ্যাকশন দৃশ্যে কী অ্যারেঞ্জমেন্ট থাকবে, তা স্বচক্ষে দেখার জন্য আপনাদের আমি অনন্ত জলিল আমন্ত্রণ জানাচ্ছি; আমার দৃঢ় বিশ্বাস বাস্তবে আমার ছবির সিনেমার শুটিং দেখে আপনি হলিউডের সিনেমা দেখার অভিজ্ঞতা লাভ করবেন।’

 বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনার ‘দিন-দ্য ডে’ ছবিতে অভিনয় করছেন অনন্ত জলিল। ছবিটির বাংলাদেশ অংশের প্রযোজকও তিনি। ছবিটির ইরান অংশের মূল পরামর্শক ও উপদেষ্টা হিসেবে আছেন ড. মুমিত আল রশিদ।