সংঘর্ষে ভাঙল বিদ্যাসাগরের মূর্তি, পশ্চিমবঙ্গে তোলপাড়

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

উত্তর কলকাতার বিদ্যাসাগর কলেজের ক্যাম্পাসে বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে ভাঙল ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তি। তৃণমূলের অভিযোগ, অমিত শাহের রোড শোয়ে অংশগ্রহণকারী বিজেপির লোকজনই ভাঙচুর চালায়। বিজেপির দাবি, অমিত শাহের গাড়ি পেরিয়ে যাওয়ার পর কলেজের ভিতর থেকে ইটবৃষ্টি শুরু করে তৃণমূল। তাদের কর্মীরা নিজেদের ধরে রাখতে পারেননি।

 

তবে বিজেপির অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। তাদের দাবি, কালো পতাকা দেখানো হয়েছিল। কিন্তু ইট ছোড়া হয়নি। বরং বিজেপি কর্মীরাই ভিতরে ঢুকে তাণ্ডব চালিয়েছে। শিক্ষার্থীদের মারধর করেছে। এসময় তিনটি বাইকও জ্বালিয়ে দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় পশ্চিমবঙ্গজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। রাজনৈতিক কারণে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন কবি, সাহিত্যিক ও বুদ্ধিজীবীরা। এর সুষ্ঠু তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

রাজ্যের বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীর এই ঘটনার প্রতিবাদে কালো ব্যাজ ধারণ ও মিছিল করার ঘোষণা দিয়েছে। এছাড়া তৃণমূল ও বাম দলও বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদে পতাকা মিছিল করবে। বাম দল এ ঘটনার জন্য বিজেপি ও তৃণমূল দুই দলকেই দায়ী করেছে।

মঙ্গলবার রাতে ঘটনাস্থলে হাজির হন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এ ঘটনার জন্য বিজেপিকে দায়ী করে বলেন, রাজ্যে ঐতিহাসিক কোনো নিদর্শন ও মনীষীদের অপমান হলে তিনি কাওকে ছাড় দেবেন না। এছাড়া বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রোফাইল পিকচার পরিবর্তন করেছেন মমতা।