দেশের মানুষ ইলেকশন মুডে, আন্দোলনে নয় : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপির উদ্দেশে বলেছেন, ‘মানুষ এখন আন্দোলনের মুডে নেই, ইলেকশন মুডে আছেন। লিপ সার্ভিস (কথা বলে) দিয়ে ভোট পাওয়া যায় না। উন্নয়ন দেখাইতে হয়। আমরা সেটা দেখিয়েছি। বিএনপির এমন কোনো অর্জন নেই যে, তারা মানুষের কাছে ভোট চাইবে।’ 

আজ বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে ওই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগ ও সহায়ক সরকারের দাবি জানিয়েছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

জবাবে মির্জা ফখরুল ইসলামকে উদ্দেশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নৈতিকতার দিক দিয়ে খালেদা জিয়া বিএনপির প্রধান থাকতে পারেন না। তিনি দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত হয়েছেন। রাতের আঁধারে তাঁরা তাদের গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা পরিবর্তন করেছেন। সংবিধান অনুযায়ী, নির্বাচনকালীন সরকার হবে। প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের প্রশ্নই আসে না। প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করলে দেশ চালাবে কে? মির্জা ফখরুল?’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে সংবিধানে যা আছে, সেভাবেই সরকার গঠন হবে। সংবিধান পরিবর্তন ও সংশোধনের সুযোগ নেই।’ 
বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না, এ ধরনের অভিযোগ অবান্তর। তাঁরা প্রতিনিয়তই সভা-সমাবেশ করছেন। গতকালও তাঁরা বিজয় দিবসের শোভাযাত্রা করেছেন। যানজট হবে বলে সেটা আমরা করিনি। অনুমতি না দিলে তাঁরা কীভাবে করলেন? বিএনপিকে নিয়ে আমরা আসলেই বেকায়দায় আছি। সভা-সমাবেশের অনুমতি দিলে বলে, অনুমতি দিতে সরকার বাধ্য হয়েছে। আর অনুমতি না দিলে বলে, দেশে গণতন্ত্র নাই, গণতন্ত্র হরণ করা হয়েছে। আপনারাই বলেন, আমরা কী করি বিএনপিরে নিয়ে।’ 

আগামীকাল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হবে কি না এ প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা ডিএমপি কমিশনারের ব্যাপার। বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল, তখন আমাদের পার্টি অফিসের সামনে জড়ো হইতেও দেয়নি।’

বিএনপির উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, ‘সরকারকে বাধ্য করতে বিএনপি নয় বছরে নয় মিনিটও কিছু করে দেখাতে পারেনি। তাদের সেই ক্ষমতা নেই। সংবাদ সম্মেলন পর্যন্তই বিএনপির শক্তি সীমিত।’ 

সম্প্রতি জার্মানির একটি গবেষণা সংস্থা বাংলাদেশকে স্বৈরতান্ত্রিক দেশের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছে। এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা ওই সংস্থার বিষয়ে তথ্য এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করেছি। এখন আমরা এটা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখছি। জাতিসংঘ যখনই বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা দিতে যাচ্ছে, তখন এই ধরনের রিপোর্টের উদ্দেশ্য কী, তা আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখছি।‘ 

এ ছাড়া সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের দেশের রাজনীতি, সুশাসন, আওয়ামী লীগের তৃণমূলের অবস্থা, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি, ব্যাংকের টাকা তসরুফসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্নের জবাব দেন।