বিশ্ব চীনা পণ্যে আরও ৫% শুল্ক যুক্তরাষ্ট্রের

নিজস্ব প্রতিবেদক | র‍্যাপিড পিআর নিউজ.কম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাস্প চীন থেকে আমদানি করা ৫৫ হাজার কোটি ডলারের পণ্যে অতিরিক্ত আরও ৫ শতাংশ শুল্ক আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন।

ওয়াশিংটনের আগের আরোপ করা শুল্কের প্রতিক্রিয়ায় শুক্রবার বেইজিং সাড়ে ৭ হাজার কোটি ডলারের মার্কিন আমদানি পণ্যে শুল্ক বসানোর কয়েক ঘণ্টা পর ট্রাম্প এ ঘোষণা দেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

একই দিন টুইটারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট তার দেশের কোম্পানিগুলোকে চীন থেকে কার্যক্রম গুটিয়ে নেওয়ারও আহ্বান জানিয়েছেন।

“দুঃখজনকভাবে, ন্যায্য ও ভারসাম্যপূর্ণ বাণিজ্যের বিষয়ে আগের প্রশাসনগুলো চীনকে এতখানি ছাড় দিয়েছে যে তারা মার্কিন করদাতাদের জন্য বড় বোঝা হয়ে উঠেছে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে, আমি আর এটা হতে দিতে পারি না,” বলেছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রাথমিকভাবে চীনের যে ২৫ হাজার কোটি ডলারের পণ্যে ২৫ শতাংশ শুল্ক কার্যকর আছে, তা ১ অক্টোবর থেকে বেড়ে ৩০ শতাংশ হবে বলে জানান এ রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট।

বাকি ৩০ হাজার কোটি ডলারের পণ্যে শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বেড়ে হবে ১৫ শতাংশ; এসব পণ্যের অর্ধেকে শুল্ক বসবে ১ সেপ্টেম্বর থেকে, ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে কার্যকর হবে পরের অর্ধেকে।

ট্রাম্পের ঘোষণার পর মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধির কার্যালয় থেকেও চীনা আমদানি পণ্যে আরও শুল্ক আরোপের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

২৫ হাজার কোটি ডলারের পণ্যে অক্টোবর থেকে ৩০ শতাংশ শুল্ক কার্যকর করার আগে জনমত যাচাইয়ের কথাও জানায় তারা।

চীনা পণ্যে ওয়াশিংটনের আরও ৫ শতাংশ শুল্কে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন মার্কিন ব্যবসায়ীরা।

“এ পরিস্থিতিতে ভবিষ্যতের ব্যবসার পরিকল্পনা করা অসম্ভব। এর শেষ কোথায়?,” জিজ্ঞাসা যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল রিটেইল ফেডারেশনের জ্যেষ্ঠ ভাইস প্রেসিডেন্ট ডেভিড ফ্রেঞ্চ।

চলতি সপ্তাহে ফ্রান্সে হতে যাওয়া জি-৭ সম্মেলনে ট্রাম্পের সঙ্গে বিশ্বের বেশ কয়েকটি শীর্ষ অর্থনীতির দেশের শীর্ষ নেতৃত্বের দেখা হওয়ার কথা রয়েছে; সেখানেও এই বাণিজ্য উত্তেজনা উত্তাপ ছড়াতে পারে বলে ধারণা পর্যবেক্ষকদের।

বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চীন অবশ্য জি-৭ এর এ জোটে নেই।