spot_img
spot_img

বুধবার, ৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, রাত ১১:২১

সর্বশেষ
বাগমারা প্রেসক্লাবের সভাপতি ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় গ্রেফতার, দ্রুত মুক্তির দাবি মহাসড়কে দুর্ঘটনা রোধে অতিরিক্ত গতির গাড়ির বিরুদ্ধে তৎপর হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে হেলমেট পরিধানে উদ্বুদ্ধ করছে হাইওয়ে পুলিশ খুলনায় বিএনপির মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ বাগেরহাটে র‌্যাবের ভেজাল বিরোধী অভিযান, তিন প্রতিষ্ঠানকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা ইসলামী ব্যাংক ও পার্কভিউ হসপিটাল-এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিঃ ও বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড-এর মধ্যে ‘মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রিপেইড মিটারের বিল প্রদান’ বিষয়ক চুক্তি স্বাক্ষর
প্রচ্ছদসারাদেশআটোয়ারী থানা হেফাজতের টয়লেটের দরজায় মাথা ঠুকে চুরি মামলার আসামী আহত

আটোয়ারী থানা হেফাজতের টয়লেটের দরজায় মাথা ঠুকে চুরি মামলার আসামী আহত





পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে থানা হেফাজতের টয়লেটের দরজায় মাথা ঠুকে আহত হয়েছেন এক যুবক। আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে আটোয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং রাতে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চুরির অভিযোগে শুক্রবার সন্ধায় আটককরে থানায় নিয়ে আসেন পুলিশ। পরদিন শনিবার সকালে পঞ্চগড় আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় এমন ঘটনার সৃষ্টি করে ওই যুবক। এ সময় তার পরিবারের লোকজন পাশে দাঁড়িয়ে ঘটনা প্রত্যক্ষ করেন। আটককৃত যুবক উপজেলা সদরের ছোটদাপ এলাকার তমিজ উদ্দীনের পুত্র মোঃ সাইদুর রহমান (২৬)। বর্তমানে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানা যায়।

অভিযুক্ত যুবকের বোন জেসমিন আক্তার বলেন, শুক্রবার সন্ধায় আমার ভাইকে তারা তুলে নিয়ে যায়। পুলিশ শুক্রবার রাতে ডেকে আমাদের কাছে উৎকোচ দাবি করেছিল তাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য। উৎকোচ দিতে পারিনি বিধায় পুলিশ গভীর রাতে থানায় তাকে নির্যাতন করে সকালে হাসপাতালে ভর্তি করে।
আটোয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ হুমায়ুন কবীর বলেন, সাইদুরের মাথায় আঘাত রয়েছে। ধাতব কোন কিছু দিয়ে আঘাত পেতে পারে বলে মনে হচ্ছে।

আটোয়ারী থানার অফিসার ইনচার্জ ইজার উদ্দিন বলেন, সাইদুরকে চুরির অভিযোগে আটক করা হয়। এর আগেও তার বিরুদ্ধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চুরির অভিযোগে মামলা রয়েছে এবংকি তার বাসা তেকে মালামাল উদ্ধার করা হয়েছিল। থানা হেফাজতে তাকে কোন প্রকার নির্যাতন করা হয়নি। বিশেষ করে থানা ক্যাম্পাস সিসি ক্যামেরার আওতাভুক্ত। সে ক্ষেত্রে নির্যাতন করার প্রশ্নই আসেনা। সে থানা হাজতের টয়লেটে তার পরিবারের লোকজনের উপস্থিতিতেই নিজেই নিজের মাথা ঠুকে আহত হয়। আমরা তাকে হাসপাতালে ভর্তি করি এবং উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করি।

পঞ্চগড় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদর্শন কুমার রায় খবর পেয়েই ছুটে আসেন হাসপাতালে। আহত ব্যক্তি এবং তার পরিবার সহ ডাঃ এর সাথে কথা বলে তিনি জানান, পরিবারের পক্ষ থেকে প্রথমে সত্য কথাই বলেছিলেন। পরে তারা অজ্ঞাত কারণে তাদের মত পাল্টান। এখন পুলিশের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ তুলছেন। যেটা আদও সম্ভব নয়। থানা হেফাজতে কিংবা অন্য কোনভাবে তাকে নির্যাতন করার প্রশ্নই আসেনা। তাকে জেল হাজতে নেওয়ার সময় প্রথমে সে যেতে চাচ্ছিল না। পরে পুলিশ ও তার পরিবারের সামনে টয়লেটে গিয়ে সেখানকার দরজার লোহার হাতলে নিজের মাথা ঠুকে আহত হন। অভিযুক্ত চোর কিংবা কোন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারের পর তারা যদি এমন কান্ড করেন, তাহলে জনগণের জান মালের নিরাপত্বা দেয়া আমাদের জন্য কঠিন হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে আমাদের আর কি বলার থাকে।

বার্তা প্রেরক
এ রায়হান চৌধূরী রকি
আটোয়ারী (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি







মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বাধিক পঠিত