spot_img
spot_img

সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, সকাল ৭:৩৮

সর্বশেষ
বাগমারা প্রেসক্লাবের সভাপতি ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় গ্রেফতার, দ্রুত মুক্তির দাবি মহাসড়কে দুর্ঘটনা রোধে অতিরিক্ত গতির গাড়ির বিরুদ্ধে তৎপর হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে হেলমেট পরিধানে উদ্বুদ্ধ করছে হাইওয়ে পুলিশ খুলনায় বিএনপির মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ বাগেরহাটে র‌্যাবের ভেজাল বিরোধী অভিযান, তিন প্রতিষ্ঠানকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা ইসলামী ব্যাংক ও পার্কভিউ হসপিটাল-এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিঃ ও বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড-এর মধ্যে ‘মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রিপেইড মিটারের বিল প্রদান’ বিষয়ক চুক্তি স্বাক্ষর
প্রচ্ছদআন্তর্জাতিকইতালি যাওয়ার পথে নৌকা ডুবে নিহত ২০

ইতালি যাওয়ার পথে নৌকা ডুবে নিহত ২০




গত মাসে অবৈধভাবে ইউরোপ যাওয়ার পথে একদল অভিবাসীর ওপর পাচারকারীদের নির্বিচার গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিলেন ৩০ জন, যার ২৬ জনই ছিলেন বাংলাদেশি, বাকি চারজন আফ্রিকান। এ ঘটনার পর বিশ্বজুড়ে ফের আলোচনায় উঠে আসে অভিবাসন সমস্যা।

প্রতিবছর আফ্রিকা-দক্ষিণ এশিয়ার অসংখ্য মানুষ ভাগ্য পরিবর্তনের আশায় জীবনের ঝুঁকি নিয়েই অবৈধভাবে ইউরোপের পথে রওয়ানা হন। তাদের অনেকেই মুক্তিপণের জন্য হয় পাচারকারীদের হাতে বন্দি হন, নাহয় নৌকায় সাগরপাড়ি দিতে গিয়ে হারান প্রাণটাই।

আবারও ঘটেছে সেই একই ঘটনা। ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিশিয়া উপকূলে নৌকাডুবিতে অন্তত ২০ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার এসফ্যাক্স শহর আদালতের মুখপাত্র মৌরাদ তৌরকি জানিয়েছেন, মোট ৫৩ জন অবৈধ অভিবাসী নিয়ে ইতালি যাচ্ছিল নৌকাটি। এর বেশিরভাগ যাত্রীই ছিলেন আফ্রিকান। পথিমধ্যে ডুবে যাওয়ায় অন্তত ২০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এখনও নিখোঁজ অনেকেই। তাদের খুঁজতে অভিযান শুরু হয়েছে।

dead-1

গত মাসেই তিউনিশিয়া উপকূলে আরেকটি নৌকাডুবির ঘটনায় একজন নিহত ও ছয়জন নিখোঁজ হন। সেসময় নৌকার অন্তত ৮০ যাত্রীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছিল।

জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার মতে,গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের প্রথম চারমাসে তিউনিশিয়া থেকে অবৈধভাবে ইতালি যাওয়ার প্রচেষ্টা ১৫০ গুণ বেড়ে গেছে।

গত বছর তিউনিশিয়ার জারজিস উপকূলে নৌকাডুবিতে প্রাণ হারিয়েছিলেন অন্তত ৮৬ জন।

সূত্র: আল জাজিরা







মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বাধিক পঠিত