spot_img
spot_img

মঙ্গলবার, ৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯, বিকাল ৪:২০

সর্বশেষ
বাগমারা প্রেসক্লাবের সভাপতি ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় গ্রেফতার, দ্রুত মুক্তির দাবি মহাসড়কে দুর্ঘটনা রোধে অতিরিক্ত গতির গাড়ির বিরুদ্ধে তৎপর হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে হেলমেট পরিধানে উদ্বুদ্ধ করছে হাইওয়ে পুলিশ খুলনায় বিএনপির মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ বাগেরহাটে র‌্যাবের ভেজাল বিরোধী অভিযান, তিন প্রতিষ্ঠানকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা ইসলামী ব্যাংক ও পার্কভিউ হসপিটাল-এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিঃ ও বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড-এর মধ্যে ‘মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রিপেইড মিটারের বিল প্রদান’ বিষয়ক চুক্তি স্বাক্ষর
প্রচ্ছদজাতীয়সব কারাগারকে ভার্চুয়াল সুবিধায় আনার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

সব কারাগারকে ভার্চুয়াল সুবিধায় আনার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

দেশের সব জেলখানায় ভার্চুয়াল সিস্টেম স্থাপনের নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘কয়েদিরা যেন মানবিক সুযোগ-সুবিধা পায়, সেজন্য সব কারাগারই সংস্কার করতে হবে’।

রোববার (২১ জুন) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এমন নির্দেশনা দেন তিনি। একনেক সভা শেষে দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া এ নির্দেশনাটির বিষয়ে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। একনেক সভায় ‘জামালপুর জেলা কারাগার পুনর্নির্মাণ’ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। চলতি বছরের জুলাই থেকে ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করার সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে খরচ হবে ২১০ কোটি ৩ লাখ টাকা।

jagonews24

এ বিষয়ে আলাপ করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া নির্দেশনা তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘জামালপুরে ভার্চুয়াল কোর্ট গড়তে হবে। যাতে মামলা মোকদ্দমা ডিজিটালি সম্ভব হয়। জামালপুর তো আজকে হলো। অন্যান্য জেলার কারাগারগুলোরও সার্বিকভাবে ভার্চুয়াল সুযোগ-সুবিধা থাকতে হবে। অনেক সময় অভিযুক্তকে নেয়ার দরকার নেই, ওখানে বসেই বিচার হবে ভার্চুয়ালি। কিছু কিছু কয়েদি আছে, নিরাপত্তাজনিত কারণে না নেয়াই নিরাপদ। সেজন্য তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন, সব জেলখানায় ভার্চুয়াল সিস্টেম বসিয়ে দাও। জামালপুর তো করবেই, অন্যগুলোতেও বসাও।’

এম এ মান্নান আরও বলেন, ‘জামালপুর জেলা কারাগারের প্রকল্প যখন নিয়ে যাই, তখন তিনি (প্রধানমন্ত্রী) অত্যন্ত আবেগী হয়ে বলেন, এসব লোকগুলো কষ্ট করে, এরা যেন ভালোভাবে থাকতে পারে। এখানে যেন ব্রিটিশ, পাকিস্তানি মনোভাব ন থাকে। তারা যেন মিনিমাম মানবিক আচরণ পায় এবং সুযোগ-সুবিধা পায়। তারাও যেন ফ্যানের বাতাস পায়, পানিওয়ালা টয়লেট পায়, রেডিও-টিভি দেখার সুযোগ থাকে। জেলে কিন্তু কিছু কিছু হাতের কাজ করা হয়। সেগুলো বিক্রি করা হয়। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন, এখান থেকে যা আয় হবে, তার অর্ধেক তারা পাবে। বাড়ি যাওয়ার সময় নিয়ে যাবে। আমি যদি পাঁচ বছর জেলে থাকি, উৎপাদন করি ৫০ হাজার টাকা, ২৫ হাজার টাকা পাব যাওয়ার সময়। এটা অত্যন্ত ভালো কাজ। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, তিনি ইতিমধ্যে এটা শুরু করে দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বললেন, সব জেলেই এটা করতে হবে। সংস্কার শুধু জামালপুর জেল নয়, অন্যান্য জেলও সংস্কার করতে হবে। একটা আধুনিক ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে, জেলের বাসিন্দারা যেন মানসম্মত অবস্থায় থাকতে পারে।’

মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বাধিক পঠিত