spot_img
spot_img

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, সন্ধ্যা ৬:১০

সর্বশেষ
বাগমারা প্রেসক্লাবের সভাপতি ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় গ্রেফতার, দ্রুত মুক্তির দাবি মহাসড়কে দুর্ঘটনা রোধে অতিরিক্ত গতির গাড়ির বিরুদ্ধে তৎপর হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে হেলমেট পরিধানে উদ্বুদ্ধ করছে হাইওয়ে পুলিশ খুলনায় বিএনপির মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ বাগেরহাটে র‌্যাবের ভেজাল বিরোধী অভিযান, তিন প্রতিষ্ঠানকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা ইসলামী ব্যাংক ও পার্কভিউ হসপিটাল-এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিঃ ও বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড-এর মধ্যে ‘মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রিপেইড মিটারের বিল প্রদান’ বিষয়ক চুক্তি স্বাক্ষর
প্রচ্ছদবেতনের সমস্যা থেকে ঘুমের ব্যাঘাত
Array

বেতনের সমস্যা থেকে ঘুমের ব্যাঘাত

বেতন নিয়ে অফিসের সাথে চলে টানাপড়েন তাহলে রাতের ঘুমটাও মাটি হতে পারে।

 ‘দি ইন্ডিয়া স্লিপ অ্যান্ড ওয়েলনেস’য়ের এর করা পর্যালোচনায় এরকমই তথ্য পাওয়া গিয়েছে। ভারতের দিল্লি, মুম্বাই ও ব্যাঙ্গালুরু’র ৩৪৫ জন ২৫ বছর বা তারও বেশি বয়সের কর্মজীবীদের নিয়ে এই জরিপ করা হয়।

এই পর্যালোচনার আরেকটি দাবি হল, কর্মদক্ষতার সঙ্গেও ঘুমের সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে।

গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে যাদের ভালো ঘুম হয় তাদের দুই তৃতীয়ংশ দাবি করেন কর্মক্ষেত্রে তাদের দক্ষতা শতভাগ ফলদায়ক। অপরদিকে যারা পর্যাপ্ত ঘুম থেকে বঞ্চিত তাদের অর্ধেকের বেশি দাবি মনে করেন তাদের দক্ষতা ৭৫ শতাংশ কিংবা তারও কম।

৩০ বছরের নিচের যাদের বয়স তাদের ঘুম আরও বেশি বয়সের মানুষের তুলনায় কম হয়। ৩০ বছরের বেশি যাদের বয়স তাদের ঘুম সংক্রান্ত সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা দ্বিগুন। আর যাদের বয়স পঁয়তাল্লিশের বেশি তাদের এই আশঙ্কা তিনগুন বেশি।

প্রায় ৪০ শতাংশ মানুষ ঘুম থেকে ওঠার জন্য অ্যালার্ম ব্যবহার করেন। মুম্বাইতে এই সংখ্যা আরও বেশি। প্রায় ৫০ শতাংশই ঘুম থেকে ওঠার জন্য অ্যালার্মের উপর নির্ভরশীল।

গড় হিসেবে ব্যাঙ্গালুরু’র মানুষ ঘুমাতে যায় রাত ১০টা থেকে ১টার মধ্যেই। অপরদিকে মুম্বাইয়ের অধিকাংশ মানুষ মধ্যরাত পর্যন্ত জেগে থাকে। দিল্লি ও মুম্বাইয়ের তুলনায় ব্যাঙ্গালুরু’র মানুষের ঘুমের পরিসংখ্যান বেশ স্বাস্থ্যকর। এর একটি বড় কারণ হতে পারে বাইরের কোলাহল। 

এই গবেষণায় আরও দেখানো হয়, যারা রাতের খাবার খাওয়ার আর ঘুমাতে যাওয়ার মধ্যে সময়ের ব্যবধান দুই ঘণ্টার কম, তাদের ঘুম সংক্রান্ত সমস্যা ৫০ শতাংশ বেশি।

মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বাধিক পঠিত