spot_img
spot_img

সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, রাত ২:৫৩

প্রচ্ছদদেশের প্রত্যেক নাগরিক ট্যাক্স কার্ড পাবে
Array

দেশের প্রত্যেক নাগরিক ট্যাক্স কার্ড পাবে

জাতীয় পরিচয়পত্রের মতো দেশের প্রত্যেক নাগরিককে ট্যাক্স কার্ড দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি মনে করেন, এমন উদ্যোগ ব্যক্তিগত পর্যায়ে করদাতাদের উৎসাহিত করবে এবং তারা সামাজিকভাবেও সম্মানিত হবেন। এর ফলে রাজস্ব আহরণও বাড়বে। অর্থমন্ত্রী বলেন, কেউ যদি এক টাকাও ট্যাক্স দেন, তার জন্যও ট্যাক্স কার্ড করা হবে। আগামী অর্থবছরের প্রাক-বাজেট আলোচনায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতির সঙ্গে আলাপকালে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

রবিবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সম্মেলন কক্ষে এই প্রাক-বাজেট আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এতে সভাপতিত্ব করেন। এতে বিভিন্ন সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং সদস্যরা অর্থমন্ত্রীকে আগামী বাজেটে করের হার না বাড়িয়ে করের আওতা বাড়ানো, কর ব্যবস্থার সংস্কার করে ব্যক্তিগত করমুক্ত আয়ের সীমা বাড়িয়ে পাঁচ লাখ টাকা করা, ব্যক্তিগত আয়ের সর্বোচ্চ শ্রেণীর জন্য করের পরিমাণ কমানো, সব নাগরিকের জন্য ট্যাক্স কার্ডের প্রচলন করার তাগাদা দেন। এর পাশাপাশি শিক্ষা খাতের দুরবস্থা, শিক্ষার গুণগত মান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তি, চিকিৎসক সঙ্কট ইত্যাদি বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়।

স্বাচিপের নাম ভাঙ্গিয়ে কর্মস্থলে থাকেন না ডাক্তাররা ॥ আলোচনায় সরকারপন্থী চিকিৎসকদের সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) নাম ভাঙ্গিয়ে ডাক্তাররা কর্মস্থলে থাকেন না বলে অর্থমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করেন সংসদ সদস্য সিমিন হোসেন রিমি। জাতীয় নেতা তাজউদ্দীন আহমদের কন্যা সিমিন হোসেন রিমি বলেন, কঠোর নির্দেশনা সত্ত্বেও চিকিৎসকরা গ্রামে থাকেন না। উচ্চশিক্ষার অজুহাত এবং স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) পরিচয়ে চিকিৎসকরা কর্মস্থলে থাকেন না। ঢাকায় চলে আসেন।

জেলা এবং উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসকদের থাকতে না চাওয়ার প্রবণতা নতুন নয়। নানা সময় সরকার কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েও এই প্রবণতায় রাশ টানতে পারেনি। সম্প্রতি রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপজেলা হাসপাতাল থাকতে না চাইলে চাকরি ছেড়ে দেয়ার আহ্বান জানান ডাক্তারদের। কিন্তু এরপরেও পরিস্থিতির বলার মতো উন্নতির প্রমাণ মেলেনি। আলোচনায় সিমিন হোসেন রিমি ছাড়াও আরও কয়েকজন সংসদ সদস্য নিজেদের নির্বাচনী এলাকায় চিকিৎসক সঙ্কটের কথা তুলে ধরেন। সিমিন হোসেন রিমি চিকিৎসকদের উপজেলায় না থাকার প্রবণতা ঠেকাতে আরও কঠোর এবং কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানান।

মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বাধিক পঠিত