spot_img
spot_img

শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮, রাত ১০:২৭

প্রচ্ছদডায়েট চার্টে রাখা চাই যেসব খাবার
Array

ডায়েট চার্টে রাখা চাই যেসব খাবার

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেন, মেদ ঝরানোর সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর উপায় হচ্ছে পুষ্টিকর খাবার খাওয়া। কম ক্যালোরি ও বেশি পুষ্টি পাওয়া যায় এমন খাবার রাখা চাই দৈনন্দিন ডায়েট চার্টে। জেনে নিন এমন খাবার কী কী।

ওটমিল
প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট রয়েছে ওটমিলে। এটি শরীরে এমন এক ধরনের হরমোনের নিঃসরণ বাড়ায় যা মেদ কমাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে নিশ্চিন্তে খেতে পারেন ওট। ফল অথবা দই দিয়ে ওট খাওয়া যায়। এটি সারাদিনের এনার্জি জোগাবে।
দই
ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিনসমৃদ্ধ দই ডায়েট চার্টে রাখতে পারেন। কোলন ক্যানসারের ঝুঁকি কমায় এটি। পাশাপাশি হজমের সমস্যা দূর করে ও মেদ জমতে দেয় না শরীরে।
ডালিম
অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ফলিক অ্যাসিডসমৃদ্ধ ডালিম থেকে পাওয়া যায় প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। মিষ্টি খাবারের ইচ্ছা সংবরণ করতে ডালিম খেতে পারেন। খুবই কম পরিমাণে ক্যালোরি থাকা ডালিম স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।   
মসুর ডাল
ফাইবার, প্রোটিন ও কার্বোহাইড্রেটসমৃদ্ধ মসুর ডাল রাখতে পারেন খাদ্য তালিকায়। এটি দৈনন্দিন প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করবে।
গ্রিন টি
প্রতিদিন কয়েক কাপ গ্রিন টি পান করুন। এটি দ্রুত মেদ ঝরাতে সাহায্য করবে।
তরমুজ
প্রায় ৯২ ভাগ পানি থাকে তরমুজে। এছাড়া এতে থাকা ভিটামিন এ এবং সি সাহায্য করে ওজন কমাতে।
ডিম
সকালের নাস্তায় ডিম রাখুন। ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে সবজি ও শাক মিশিয়ে ভেজে ফেলতে পারেন। স্বাস্থ্যকর এই নাস্তাটি থেকে মাত্র ১৭ ক্যালোরি পাবেন, কিন্তু দিনভর থাকতে পারবেন চনমনে।  
শসা
ক্ষুধা লাগলে শসা খান। এটি ক্ষুধা নিবারণ করবে, কিন্তু বাড়তে দেবে না মেদ। প্রচুর পরিমাণে সোডিয়াম পাওয়া যায় শসা থেকে। ক্ষুধা লাগলে শসা স্লাইস করে লেবু মিশিয়ে খেয়ে ফেলুন। চাইলে শসা ও গাজর দিয়ে একসঙ্গে সালাদা বানিয়ে খেতে পারেন।
আপেল
কম ক্যালোরিযুক্ত আরেকটি খাবার হচ্ছে আপেল। ডায়াটারি ফাইবার এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায় আপেল থেকে।

মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বাধিক পঠিত