spot_img
spot_img

শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮, সকাল ৮:১৯

প্রচ্ছদ‘আফরিন থেকে তুর্কি সেনাদের সরানো হবে’
Array

‘আফরিন থেকে তুর্কি সেনাদের সরানো হবে’

সিরিয়ার আফরিন দখল করলেও সেখানে তুর্কি সামরিক বাহিনী অবস্থান করবে না। তার বদলে এলাকাটি ‘প্রকৃত মালিকদের’ কাছে হস্তান্তর করা হবে। তুরস্কের উপ-প্রধানমন্ত্রী বাকির বোজদাগের এ কথা বলেছেন। এর আগে রোববার তুর্কি সামরিক বাহিনী ও তাদের সমর্থিত ফ্রি সিরিয়ান আর্মি আফরিন শহরে প্রবেশ করে এর নিয়ন্ত্রণ নেয়।
 
সোমবার তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় বাকির বোজদাগ সাংবাদিকদের জানান, আফরিন শহর দখল করার মাধ্যমে তুরস্ক তার সীমান্তের হুমকি কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, কুর্দি বাহিনীকে দেয়া যুক্তরাষ্ট্রের বেশিরভাগ অস্ত্রই উদ্ধার করেছে তুর্কি বাহিনী। ওয়াইপিজি এসব অস্ত্র ফেলেই আফরিন থেকে পালিয়েছে।

২০ জানুয়ারি কুর্দি পিপলস প্রটেকশন ইউনিটসের (ওয়াইপিজি) নিয়ন্ত্রণাধীন আফরিনে সামরিক অভিযান শুরু করে তুরস্ক। তুর্কিদের কাছে ওয়াইপিজি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী এবং তুরস্কে নিষিদ্ধ কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) শাখা বলে পরিচিত।

তুরস্কের অভিযানের লক্ষ্য ছিল, আফরিন থেকে কুর্দি বিদ্রোহীদের উৎখাত করা। শহরটি দখল তুর্কিদের বড় ধরনের সাফল্য। এর ফলে উত্তর সিরিয়ার সঙ্গে তুরস্কের যে সীমান্ত রয়েছে সেখানে দেশটির নিয়ন্ত্রণ আরো সুসংহত হয়েছে। এর আগ থেকেই তুরস্ক এ অঞ্চলে বেশ কয়েকটি সশস্ত্র গোষ্ঠীকে সহযোগিতা করে আসছে।

আফরিন দখলের মধ্যেই তুরস্কের অভিযান শেষ হয়ে যাবে না। এরদোগান আগেই বারবার বলেছেন, আফরিন দখল করেই তুর্কিরা থেমে যাবে না। ইরাক সীমান্তের কাছে ওয়াইপিজি নিয়ন্ত্রিত আরেকটি শহরের দিকেও এগিয়ে যাবে তুর্কি বাহিনী।

মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বাধিক পঠিত