spot_img
spot_img

শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮, রাত ১০:১২

প্রচ্ছদশীর্ষ সংবাদশুরুতে যাত্রী সংকটে চালু হল অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট

শুরুতে যাত্রী সংকটে চালু হল অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট

দুই মাসের বেশি সময় বন্ধ থাকার পর চালু হল দেশের অভ্যন্তরীণ তিনটি রুটের ফ্লাইট। তবে প্রথম দিনেই যাত্রী সংকটে বাতিল হয়েছে ৫টি ফ্লাইট। যাত্রী কম থাকায় প্রথম দিন সর্বনিম্ন ভাড়ায় ভ্রমণ করতে পেরেছেন যাত্রীরা।

দূরত্ব বজায় রাখতে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) উড়োজাহাজের আসন সংখ্যার সর্বোচ্চ ৭৫ শতাংশ যাত্রী বহনের নিয়ম করে দিয়েছে। তবে যাত্রী সংকট থাকায় এই ৭৫ শতাংশ লোডও হয়নি। বিমানবন্দরেও যাত্রীদের দূরত্ব বজায় রাখতে ছিল কড়াকড়ি। বিমানবন্দরে প্রবেশ মুখেই যাত্রীদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করেছে এয়ারলাইন্সগুলো। দিয়েছে যাত্রীদের মাস্ক ও গ্লাভস। যাত্রীদের ব্যাগে ছিটানো হয়েছে জীবাণুনাশক।

যাত্রীদের দেয়া হয়েছে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত একটি ফরম। সেখানে তথ্য দিতে হয়েছে সব যাত্রীকে। সেই ফরমে যাত্রীকে নাম, বয়স, লিঙ্গ, জন্ম তারিখ, বর্তমান ঠিকানা, এয়ারলাইন্সের নাম, ফ্লাইট নম্বর, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, শরীরের তাপমাত্রা, মোবাইল ও ই-মেইল নম্বর পূরণ করতে হচ্ছে। একই সঙ্গে জ্বর, শ্বাসকষ্ট, কোভিড-১৯ এর কোনো উপসর্গ আছে কিনা সে তথ্য দিতে হবে যাত্রীকে। কোনো যাত্রীর শরীরের তাপমাত্রা ৯৯ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা তার বেশি হলে তাকে আর ফ্লাইটে যেতে দেয়া হবে না বলেও জানিয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। সোমবার দু’জন যাত্রীকে বিমানবন্দর থেকে ফেরত যেতে হয়েছে শরীরের তাপমাত্রা বেশি থাকায়।

বিমানবন্দরের ভেতরে কিছু সময় পর পর ছিটানো হয়েছে জীবাণুনাশক। যাত্রীদের চলাচলে জায়গা, ট্রে, চেয়ার, দেয়াল, রেলিং, ব্যাগেজ বেল্ট পরিষ্কার করে জীবাণুনাশক ছিটানো হয়। এয়ারলাইন্সগুলোর কাউন্টারেও নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। যাত্রীদের বসার জায়গাগুলোতে দূরত্ব বজায় রাখা হয়েছে। কাউন্টারে যাত্রীদের শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে ফ্লোরে করা হয়েছে মার্কিং।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক এএইচএম তৌহিদ উল আহসান বলেন, যাত্রীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করতে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। এয়ারলাইন্সগুলোকেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বিমানবন্দরেও জীবাণুমুক্ত করতে পরিচ্ছন্নতা ও জীবাণুনাশক ছিটানো হচ্ছে। ফ্লাইট পরিচালনার ক্ষেত্রে সবাইকে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

যাত্রী সংকটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও ইউএস বাংলাকে বাতিল করতে হয়েছে মোট ৫টি ফ্লাইট। ইউএস বাংলার প্রথম ফ্লাইটে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম রুটের ফ্লাইটে যাত্রী ছিল ২৮ জন আর চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় এসেছেন ৩৫ জন। ঢাকা থেকে সৈয়দপুর গেছেন ৫১ জন আর ঢাকায় এসেছেন ৫৮ জন। নভোএয়ার সৈয়দপুর রুটে ৩টি, চট্টগ্রাম রুটে ৩টি ও সিলেটে ১টি ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

সকালে বিমানবন্দর পরিদর্শন করেন বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান। তিনি বিমানবন্দরের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন।

মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বাধিক পঠিত